পুলওয়ামারের ভয়াবহ ঘটনার পর ও, হেলদোল দেখা গেলনা বিজেপির।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ ৪দিন কেটে গিয়েছে পুলওয়ামার জঙ্গী হামলার। প্রাণ । ৪৫জন সেনা জওয়ান। সারা ভারত জুড়েই শোকের আবহ। সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি রাজনীতির বিরোধ সরিয়ে রেখে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলির পাশে থেকেছে। কিন্তু সবথেকে সেনাদরদী দল হিসেবে পরিচিত বিজেপি কিন্তু আছে সেই বিজেপিতেই।

সামনে লোকসভা ভোট। তার উপলক্ষে সব রাজনৈতিক দলগুলিই জোরদার পারচার চালাচ্ছে। কিন্তু পুলওয়ামারের ভয়াবহ ঘটনার পর ছোটোবড়ো সবকটি দলই তাদের কর্মসূচি বাতিল করে। কিন্তু বিজেপির তাতে কোনো হেলদোল দেখা গেলনা। নির্বাচনী সভায় উপস্থিত হয়ে বক্তৃতা দিতে দেখা গেল নরেন্দ্র মোদী বা অমিত শাহ কে। শুধু তাই নয় শহীদ জওয়ানদের নিয়ে শুরু হয়ে গেল রাজনীতিও।

রবিবারেই বিসারের বেগুসরাই এর নির্বাচনী জনসভায় সেনা মৃত্যুতে বদলার আওয়াজ তুললেন নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেছেন সেনাবাহিনীকে পুর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে তারা যেকোনো পদক্ষেপ নিতে পারেন। এরসঙ্গে যুক্ত করেছেন গরীবদের উন্নয়নে বিজেপির ভূমিকাও।




ওপর সভায় রাজনাথ সিং ও দাবী করেছেন নরেন্দ্র মোদীর আমলেই কমেছে কাশ্মীরে সন্ত্রাসবাদী হামলা। কিন্তু অন্য সুত্রে খবর তা বৃদ্ধি পেয়েছে ১৭৬%। অমিত শাহ বলেছেন কেন্দ্রে কংগ্রেস সরকার নয় বিজেপি সরকার আছে। নিরাপত্তার প্রশ্নে কোনো আপস করা হবেনা। এছাড়াও তিনি তুলে এনেছেন নাগরিকপঞ্জির কথাও। তাই বলা চলে সেনামৃত্যু নিয়ে সবথেকে বেশী রাজনৈতিক বক্তব্য এখনও বিজেপিরই রয়েছে।

এদিকে বিজেপির আইটি সেল ও অন্যান্য হিন্দুত্ববাদী গোষ্ঠীগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় পুলওয়ামার ছবি বলে নানান নকল ছবি প্রচার করা শুরু করেছে। চলছে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা তৈরীর চেষ্টা। যার থেকেও সাবধান থাকতে আহ্বান জানিয়েছে সিআরপিএফ বাহিনী।