"সেনাবাহিনীকে নির্বাচনী প্রচারের বাইরে রাখুন" রাজনৈতিক দল গুলিকে নির্দেশ দিলকমিশন।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃকিছুদিন আগেই পুলওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় শহীদ হন দেশের ৪৫ জন এর বেশি জওয়ান। যে ঘটনা ভারতীয় দের মনে যথেষ্ট আবেগের সঞ্চার করেছে। সামনেই লোকসভা নির্বাচন, আর এই নির্বাচনে ভারতীয় দের আবেগ কে পূঁজি করে নির্বাচনে জয় লাভ করতে নেমে পরেছে অনেক রাজনৈতিক দল, যার শীর্ষভাগে অবস্থান করছে বিজেপি। এবার এই নিয়েই মুখ খুলল নির্বাচন কমিশন। রাজনৈতিক দল গুলিকে, সেনাবাহিনীকে নির্বাচনী প্রচারের বাইরে রাখার জন্য নির্দেশ দেয় কমিশন।

দিল্লিতে, নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহের ছবির সঙ্গে ভারতীয় বায়ু-সেনার উইং কম্যান্ডার অভিনন্দনের একাধিক ছবি হেডিং করে প্রচারে নেমে পরেছে বিজেপি। যার অভিযোগেই নির্বাচন কমিশন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। কি লেখা ছিল এই হোডিং গুলিতে? লেখা ছিল, "প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নেতৃত্বে থাকলে সবকিছু সম্ভব", আর এবারে লোকসভায় বিজেপির নির্বাচনী স্লোগান, "মোদী হ্যাঁয় তো মুমকিন হ্যাঁয়"।

 

 
Dear Election Commission of India:
Is this permissible?
Using photograph of a serving soldier in political posters?
If not, will you act against it? pic.twitter.com/IiGUkphZWM

— Yogendra Yadav (@_YogendraYadav) March 9, 2019

 

 


বিজেপির এই ধরণের নিম্ন-রুচি সম্পূর্ণ প্রচারের বিরোধিতা করেছেন অনেকেই। কমিশন ২০১৩ সালের ৪ ডিসেম্বরের একটি চিঠি তুলে ধরে তাদের এই নির্দেশিকা জারি করেছে। যেখানে লেখা আছে, "দেশের সেনাবাহিনী হল দেশের সীমান্ত, নিরাপত্তা ও রাজনৈতিক ব্যবস্থার অভিভাবক। তারা অরাজনৈতিক এবং নিরপেক্ষ অংশ এই আধুনিক গণতন্ত্রের। তাই রাজনৈতিক দলগুলি ও তাদের নেতাদের অত্যন্ত সতর্ক থাকা উচিত নিজেদের নির্বাচনী প্রচারে সেনাবাহিনীর উল্লেখ করার আগে... তাই নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সমস্ত রাজনৈতিক দল ও রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীদের বলা হচ্ছে, তাঁরা যেন নির্বাচনী প্রচারে কোনোভাবে সেনাবাহিনী বা প্রতিরক্ষা কর্মীদের ছবি ব্যবহার না করেন এবং করে থাকলেও অবিলম্বে তা যেন সরিয়ে দেন।" যদিও এই ঘটনায় বিজেপির প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।