কৃষক আন্দোলন কে অস্বীকার সরকারের

কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী রাধামোহন সিং এবার চরম বিতর্কে জড়ালেন উত্তর ভারত উত্তাল হওয়া কৃষক আন্দোলন কে অস্বীকার করে।তার কথায় দেশে ১০-১২ কোটি মানুষ কৃষি নির্ভর সেখান থেকে ২-১হাজার কৃষক কোনো একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দল এ থাকাটা স্বাভাবিক,তিনি আরো বলেন কৃষক রা যদি কষ্ট করে ফসল ফলাত তাহলে তারা কখনোই দুধ,সবজি রাস্তায় ফেলে দিতে পারত না।খোদ কৃষিমন্ত্রীর এ হেন বক্তব্যের জেরে কৃষকদের মধ্যে প্রবল ক্ষোভ জন্মায় মন্ত্রী আরো বলেন ঐ ১৩০টি সংগঠন যারা এই বিক্ষোভের মূল ভূমিকা নিচ্ছেন তাদের সঙ্গে খুব কম সংখ্যক কৃষক আছে এবং দুধ ফেলা সবজি ফেলার ছবি গুলি কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নেহাতই ফটোশপ বলে দাবি করেন তার মতে এরকম কোনো বিক্ষোভের খবর তার কাছে আসেনি।

আবার মধ্যপ্রদেশের কৃষিমন্ত্রী বালকৃষ্ণ পাতিদা বলেন দেশে কোনো কৃষক আন্দোলন ই নেই।বালকৃষ্ণর মতে কৃষকরা খুব ভালো আছেন তাঁরা কেন্দ্র এবং রাজ্যের কাজে খুশি।হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীও বালকৃষ্ণ এবং রাধামোহন এর সাথে একমত।এদিকে বামপন্থী সংগঠন গুলি উত্তর ভারতের সমস্ত রাজ্য সরকারগুলি এবং কেন্দ্রীয় সরকার কে আগাম হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন কৃষক দের সঠিক ন্যায্যমূল্য অবিলম্বে দিতে হবে এবং বাজারের সব্জির দাম অবিলম্বে কমাতে হবে নইলে আন্দোলন আরো তীব্রতর হবে।এর আগে মধ্য ভারতে মুম্বাই দেখেছে হাজার হাজার নিঃস কৃষকের ২০০কিলোমিটারের লংমার্চ করে দাবি ছিনিয়ে আনা।তাই কি বিজেপি আগে থেকেই প্রমান করতে তৎপর যে দেশের কোথাও কোনো আন্দোলন নেই?এখন দেখার উত্তর ভারতেও কি মহারাষ্ট্রের পুনরাবৃত্তি হবে?নাকি বিজেপি আন্দোলন টিকে ভুল প্রমাণ করতে সক্ষম হয়।