প্রতিদিন শুকোচ্ছে গঙ্গা

আমরা সবাই লক্ষ্য করেছি যে গঙ্গার জলস্তর কমছে প্রতিদিনই।কিছুদিন আগে ফারাক্কা বারেজেও দেখা গেছে জলস্তর কমতে,এবং গঙ্গার যে অংশটি আমাদের কাছে হুগলী নদী বলে পরিচিত সেই সমস্ত জায়গায় গঙ্গার জলস্তর নেমেছে প্রবল ভাবে।ফলে বেশির ভাগ জায়গায় ফেরি চলাচল বন্ধ করে দিতে হয়েছে।আবার কোথাও বিস্তৃত চর হয়ে আছে বহুদিন ধরে,বরং সেই চর দিন দিন বিশালাকার নিচ্ছে।ফারাক্কার ফিডার ক্যানেলের ও অবস্থা শোচনীয় ফলে বন্ধ করে দিতে হয়েছে এন টি পি সি তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র।

আর এই অবস্থার জন্য পরিবেশ বিজ্ঞানীরা দায়ী করছে বাংলাদেশের সঙ্গে জলচুক্তি কেই।কারণ এই চুক্তি অনুযায়ী ভারত কে প্রতিদিন ৩৫ হাজার কিউসেক জল সরবরাহ করতে হয়।এবং এই চুক্তি অনুযায়ী ভারত আগামী ২০ শে মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশ কে জল দিতে বাধ্য।নদী বিশেষজ্ঞ দের মতে বর্ষা ঢুকলে একটু হলেও সমস্যার সমাধান হতে পারে।তা না হলে এখন অপেক্ষা করতে হবে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত কারণ সেই সময় হিমালয়ের বরফ গলা জল আসবে গঙ্গাবক্ষে।

 


তাছাড়া বাংলাদেশের সাথে চুক্তি অনুযায়ী ২০শে মার্চের পর টানা ১০দিন ৩৫হাজার কিউসেক জল দেবে বাংলাদেশ।তাই আশা করা যায় এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ থেকে সাময়িক ভাবে হলেও গঙ্গার জলস্তর স্বাভাবিক থাকবে।গঙ্গা যদি এইভাবে সংকীর্ণ হতে থাকে তবে গঙ্গার উপর নির্ভরশীল মানুষ সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।তাই আমাদের সবার উচিৎ গঙ্গা কে এই পরিস্থিতি থেকে উদ্ধার করা।