৭ বছরের ধর্ষিতার বাবার সঙ্গে বিজেপি বিধায়ক করলেন অভব্য আচরণ।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ কুরুচির পরিচয় দিলেন বিজেপি বিধায়ক। মধ্যপ্রদেশের মন্দসৌরে একজন সাত বছরের ছাত্রী কে গণধর্ষণ এর শিকার হয়। স্কুল থেকে ফেরার পথে সাত বছরের মেয়েকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে জানা যায়। গণধর্ষণ এবং নৃশংস অত্যাচারের ঘটনায় যখন সারা দেশ সরব, তখন সেই ছাত্রীর বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে কুরুচির পরিচয় দিলেন বিজেপি বিধায়ক।

জানা যাচ্ছে স্থানীয় বিজেপি বিধায়ক সুদর্শন গুপ্ত এবং বিজেপি সাংসদ সুধীর গুপ্ত ইনদওরের হাসপাতালে মেয়েটিকে দেখতে যান। এই সময় বিজেপি বিধায়ক সুদর্শন মেয়েটির বাবা-মাকে বলেন, ‘সাংসদজিকে ধন্যবাদ বলুন। তিনি শুধু আপনাদের সঙ্গে দেখা করতেই এখানে এসেছেন।’এ কথা শুনে মেয়েটির বাবা-মা সাংসদকে ধন্যবাদ জানান। আর তাতেই উঠেছে নিন্দার ঝড়।

জাতীয় অপরাধ নিবন্ধীকরণ বিভাগ(National Crime Records Bureau) কর্তৃক প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী প্রতি তিন মিনিট মহিলার বিরুদ্ধে একটি অপরাধের ঘটনা সংঘটিত হয়, প্রতি ২৯ মিনিটে একজন মহিলা ধর্ষিতা হন, প্রতি ৭৭ মিনিটে একজন মহিলার পণপ্রথার শিকার হয়ে মৃত্যু হয় এবং প্রতি নয় মিনিটে একজন মহিলা তাঁর স্বামী বা শ্বশুরবাড়ির লোকের নির্যাতনের শিকার হন।

আর ভারতের বুকে এক জন সাত বছরের শিশু ধর্ষিতা হবার পর, বিজেপি বিধায়ক যেভাবে সহানুভূতি না দেখিয়ে অভব্য আচরণ করেছেন তাতে নিন্দা করেছেন সবাই। যদিও চাপের মুখে বিজেপি বিধায়ক সুদর্শনকে এই ঘটনার জন্য ক্ষমা চাইতে হয়েছে। তবে বিরোধীরা চুপ না থেকে, " বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও" স্লোগানের আড়ালে এটাই বিজেপির আসল রুপ বলে বিরোধীরা অভিযোগ করেছেন।