গোহত্যা ঘিরে পুলিশ- জনতা সংঘর্ষ। ছড়ালো উত্তেজনা।

১০দিক২৪ব্যুরো: গোহত্যা ও তার পরবর্তী জনতা-পুলিশ সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ালো ঝাড়খন্ডে। বিগত কয়েকবছর ধরেই গোহত্যা বা গোমাংসকে কেন্দ্র করে অশান্তি দানা বাঁধছে দেশের নানা প্রান্তে। তার ব্যতিক্রম হলোনা বকরী ঈদের দিনটিও।

জানা গিয়েছে এবারের বকরী ঈদে গোহত্যায় নিষেধাজ্ঞা জারী করেছিল ঝাড়খন্ড সরকার। কিন্তু ঈদ উপলক্ষে ঝাড়খন্ডের পাকুড়ে গোহত্যা হচ্ছে খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছায় মহেশতলা পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন সেখানে পৌঁছে পুলিশ কুরবানীতে বাঁধার সৃষ্টি করে। ও কুরবানীর জন্য রাখা গরুগুলি ছেড়ে দেবার চেষ্টা করে বলেও অভিযোগ।
ধর্মীয় কাজে পুলিশের হস্তক্ষেপে ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীরা এরপর জোটবদ্ধ ভাবে মহেশতলা থানা ঘেরাও করেন। পুলিশ জানিয়েছে জনতার মধ্যে থেকে পুলিশের দিকে পেট্রোল বোমা ছোঁড়া হয়। পাল্টা পুলিশও গুলি চালায়। এই সংঘর্ষে পুলিশ ও গ্রামবাসী মিলিয়ে মোট ৪০জন গুরুতর আহত হন। বর্তমানে তাঁরা সকলেই চিকিৎসাধীন।

তবে এভাবে পুলিশ ধর্মীয় অনুষ্ঠানে হস্তক্ষেপ ও তাতে বাঁধা দেওয়ায় ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীরা পুলিশকে আক্রমণের কথা অস্বীকার করে জানিয়েছেন তাঁরা শুধুমাত্র এই হস্তক্ষেপের কারণ জানতেই থানায় গিয়েছিলেন। আর তাতেই তাদের উপর গুলি চালায় মহেশতলা থানার পুলিশ।