শিশুকে বাঁচিয়ে সরকারী নাগরিকত্ব পেল স্পাইডার ম্যান।

ঘটনাটি ঘটেছে প্যারিসে। ইতিমধ্যে অনেকেই দেখে ফেলেছেন ভাইরাল ভিডিও টি। পাঁচতলার বারান্দা থেকে ঝুলন্ত একটি চার বছরের শিশুকে দেওয়াল বেয়ে উঠে, বাঁচিয়ে সে দেশের মানুষের চোখে রীতিমত হিরোর সম্মান পাচ্ছেন মামৌদৌ গাসামা। নেট দুনিয়া যাকে বলছে রিয়েল লাইফ স্পাইডারম্যান।

মামৌদৌ গাসামা আসলে পশ্চিম আফ্রিকার মলি প্রদেশ থেকে আগত একজন অভিবাসী। যিনি জীবিকার খোঁজে প্যারিসে আসেন। ঘটনাটি ঘটে প্যারিসের মাল্টি এথনিক ব্লকে। হঠাৎ ই তিনি শিশুটিকে বারান্দা থেকে বিপজ্জনক ভাবে ঝুলতে দেখেন। এরপরের ঘটনাই চমকে দিয়েছে সারা বিশ্বকে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে গাসামা একের পর এক ব্যালকনি বেয়ে পৌঁছে গেছেন শিশুটির কাছে। দমকল কে খবর দেওয়া হলেও, তারা পৌঁছানোর আগেই শিশুটিকে উদ্ধার করে ফেলেন এই বছর ২২শের আফ্রিকান যুবক। প্রত্যক্ষদর্শীদের কথায় "ভাগ্যবশত সেসময় গাসামা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। কারণ যেভাবে শিশুটি ঝুলছিল, আর দেরী হলে হয়ত শিশুটিকে বাঁচানো যেতনা।"

কী বলেছেন রিয়েল লাইফের স্পাইডারম্যান? তিনি বলেছেন তিনি অত ভেবে কিছু করেননি বা এধরণের কাজের কোনো পূর্ব অভিজ্ঞতাও তাঁর নেই । বলেছেন "আমি দেখলাম সেখানকার মানুষজন চিৎকার করছিল। গাড়ী গুলি হর্ণ বাজাচ্ছিল। আমি কিছু না ভেবেই ব্যালকনি দিয়ে উঠতে শুরু করি। শেষপর্যন্ত যে শিশুটিকে বাঁচাতে পেরেছি তার জন্য ঈশ্বর কে অশেষ ধন্যবাদ।" আরও বলেছেন যে "যখন শিশুটিকে উদ্ধার করে লিভিংরুমে নিয়ে যাই। তখন আমি রীতিমত কাঁপছি। এতটাই উত্তেজনায় ছিলাম যে আমি মেঝেতেই বসে পড়ি।"

এর পরিপ্রেক্ষিতেই ঘটনার দুদিন পর প্যারিসের প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল ম্যাকরন জানিয়েছেন যে গাসামা কে রাষ্ট্রীয় সম্মানে ভূষিত করা হবে ও ফ্রান্সের নাগরিকত্ব ও দেওয়া হবে তাকে। এছাড়াও গাসামা কে ফ্রান্সের দমকল বিভাগে চাকরি দেওয়ার কথাও ঘোষনা করেছেন প্রেসিডেন্ট। বলেছেন "যেভাবে নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই যুবক শিশুটিকে রক্ষা করেছেন, তা এককথায় অত্যন্ত সাহসিকতার নিদর্শন। তার এই মহানুভবতার কথা ফ্রান্স অধিবাসীরা মনে রাখবে"। প্যারিসের মেয়র অ্যান হিডালগো ও উষ্ণ অভিনন্দন জিনিয়েছেন গাসামা কে। গাসামা জানিয়েছেন তিনি আপ্লুত। কারণ এত পুরস্কার তিনি কখনই পাননি।
প্রসঙ্গত ওই শিশুটির বাবাকে শিশুটিকে অবহেলা করার জন্য জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হয়েছে। ঘটনার সময় শিশুটির মা প্যারিসে ছিলেন না।