দেখে নিন চুলের তৈলাক্ত ভাব কিভাবে কমাবেন

তাই আমরা দেখে নেব কি কি ঘরোয়া পদ্ধতিতে চুলের এই তৈলাক্ত দূর করা যেতে পারে।

১০ দিক ২৪: বর্তমানে গরমের পরিমাণ টা যথেষ্ট বেশি। এই গরমে চুল পড়ে যাওয়া বা চুল নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি। তাই যাদের চুল একটু তৈলাক্ত ধরনের তাদের চুলের ওপর যত্ন নেওয়া খুবই জরুরি কারণ তৈলাক্ত চুল খুব তাড়াতাড়ি বাইরের ধুলোবালি শোষণ করে নেয়।

তাহলে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে বুঝবেন আপনার চুল তৈলাক্ত কিনা। ধরুন আপনি দুদিন আগেই শ্যাম্পু করেছেন আর তা ঠিক দুদিনের মধ্যেই আপনার চুল তৈলাক্ত মনে হচ্ছে এইভাবে আপনি জানতে পারবেন আপনার চুল তৈলাক্ত কিনা। এটি একটি বিশাল সমস্যার বিষয়। এরকম পরিস্থিতিতে আপনি রোজ রোজ শ্যাম্পু করতে পারবেন না এতে করে আপনার চুল নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই আমরা দেখে নেব কি কি ঘরোয়া পদ্ধতিতে চুলের এই তৈলাক্ত দূর করা যেতে পারে।

১.চা :- একটি পাত্রে জল গরম করুন সেই জলের মধ্যে দু'চামচ চা পাতা দিয়ে তাতে বিনা চিনিতে ভালো করে ফুটিয়ে নিন। চা টি ফুটে গেলে চা টি ছেঁকে নিয়ে চা দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। এরপরে কুড়ি মিনিট মতো রাখার পরে উষ্ণ গরম জল দিয়ে আপনার চুল ধুয়ে নিন।

২. কাঁচা ডিম ও লেবুর রস:- প্রথমে কাঁচা ডিম ভেঙে তার কুসুমটা বাদ দিয়ে দিন এরপরে সেই ডিমের মধ্যে দু চামচ লেবুর রস দিয়ে ভালো করে নেড়ে নিয়ে আপনার চুলে লাগিয়ে ফেলুন। প্রায় কুড়ি মিনিট পর মাথা ধুয়ে ফেলুন এবং শ্যাম্পু করে নিন।

৩. ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা:- ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা ত্বকের জন্য এবং চুলের জন্য খুবই উপকারী। তবে তা ব্যবহারের সঠিক উপায় জানা প্রয়োজন।তিন চামচ লেবুর রস, ১ চামচ ঘৃতকুমারী জেল এবং এক কাপ শ্যাম্পু এই মিশ্রণটা দিয়ে সপ্তাহে দুবার চুল ধুবেন তাহলে চুলের তৈলাক্ত ভাব অনেকটা দূরে থাকবে। আপনার কাছে বাজারে বিক্রি হয় এমন অ্যালোভেরা জেল থাকলে হবে অথবা গাছের অ্যালোভেরা জেল থাকলেও হবে।

৪. মুলতানি মাটি:- মুলতানি মাটি আমরা অনেকেই ফেস মাস্ক হিসাবে ব্যবহার করে থাকি। মুলতানি মাটির প্রধান কাজ হল তেল বা জল শুষে নেওয়া। আপনার চুল থেকে যদি তেল বা ঘাম নির্গত হয় তাহলে মুলতানি মাটি আপনার জন্য অত্যন্ত কার্যকর। এক্ষেত্রে একটি পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে ২ চামচ মুলতানি মাটি একটু জল দিয়ে।এই প্যাকটি চুলে ২০ মিনিট লাগিয়ে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিন।