লকডাউনের বিকেলে ধ্রুবক প্রোডাকশনের হাত ধরে ইডেনের ইতিহাসের পরিক্রমা।

১৮০৪ খ্রিস্টাব্দে ওই মাঠে প্রথম ক্রিকেট খেলা হয়। 

১০ দিক ২৪: কলকাতার অন্যতম ঐতিহ্য হল 'ইডেন'। ক্রিকেটের পাশাপাশি ইডেন এর নাম সারা বিশ্বের মানুষের কাছে জনপ্রিয় এবং  প্রচলিতও বটে! 

একশো অথবা তিনশো বছরের কথা নয় এর অতীত জানতে হলে আপনাকে ফিরে যেতে হবে "রানী মার রাজত্ব কালে"। ইতিহাস জানার ইচ্ছায় অথবা ইতিহাসকে পান করার অগাধা আস্থা নিয়ে আপনাকে ইডেনকে কল্পনা করে নিতে হবে,নিজেরই আশে পাশে। 

রানী রাসমণির পরিবারের সাথে ইডেন গার্ডেন এর সম্পর্ক।  এমনকি ইডেন গার্ডেন্স এর প্রথম সরকারি ম্যাচ এর স্কোরবোর্ড পর্যন্ত।ইডেনের ইতিহাসের হলুদ পাতায় শব্দের ভান্ডারে সমস্তটাই লেখা আছে৷ 

শুধু ব্রিটিশদের দেশে নয় ভারতের কলকাতায় চালু হয় ক্রিকেট। কিন্তু ক্রিকেটের জন্য মাঠ দরকার। মাঠ একটি ছিল, কলকাতায় তা হল ময়দান। 

এই মাঠকে ইংরেজরা ক্রিকেট মাঠ বলেছিলেন। ১৮০৪ খ্রিস্টাব্দে ওই মাঠে প্রথম ক্রিকেট খেলা হয়। এখন কলকতার বাবুঘাটের দক্ষিণদিকে ইডেন উদ্যানের জায়গাটি রানী রাসমণির স্বামী দান করেন। 

তারপর নাম হয় "ইডেন"। ধীরে ধীরে গড়ে ওঠে বিভিন্ন ক্রিকেট ক্লাব।  ডিজেন সেন এর হাত ধরে তৈরি হয় বেঙ্গল জিম খানা। 

১৯২৮সালে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন  অফ বেঙ্গল হয়। তার পর রূপ বদলাতে থাকে ইডেনের। নতুনত্ব দিয়ে তৈরি হতে থাকে ইডেন। 

নতুন রূপে গড়ে ওঠে ইডেন।তবে নতুন ইডেনের পিছনে রয়েছে পুরোনো ইডেনের এক কঠিন ইতিহাস। এই ইতিহাসই পরিবর্তিত হয়ে তৈরি করেছে নতুন ইডেনকে। 

 সেই ইতিহাসের রন্ধ্রে  চোখ বুলিয়েই ইডেনের বর্তমান পর্যন্ত যাত্রাপথকে ধরে রাখার তাগিদ নিয়ে ধ্রুবক প্রোডাকশানের তত্ত্বাবধানে বেঙ্গল স্টেট আর্কাইভের সিনিয়র আর্কিভিস্ট সুমিত ঘোষের তৈরি তথ্যচিত্র 'ইডেনের ইতিকথা' আজ মুক্তি পেল। 

ইডেনের গ্যালারি থেকে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গলের অন্দরমহল,  সবটুকুই সাক্ষী থাকবে  এই তথ্যচিত্রটিতে। তথ্যচিত্রটি পরিচালনা করেছেন  তরুণ পরিচালক সৌম্য মৈত্র।