পিকলস কে জানেন? বা জুলে রিমে কে ছিলেন? আসুন জেনেনি।

আর মাত্র একটা মাস। ২০১৮ সালের ১৪ই জুন থেকে ডঙ্কা বাজতে চলেছে ফুটবল মহাযুদ্ধের। সারা পৃথিবীর মোট ৩২টি দল কে নিয়ে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত হবে FIFA আয়োজিত বিশ্বকাপ ফুটবল প্রতিযোগিতা। এখন থেকেই কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গেছে। কোন টিম হাসবে শেষ হাসি? ব্রাজিল, পর্তুগাল না আর্জেন্টিনা? কার হাতে উঠবে বিশ্বকাপ ট্রফি? রোনাল্ডো, নেইমার না মেসি? তার জবাব দেবে সময়ই।

কিন্তু এসব তো জানা। এর সাথে পিকলস এর সম্পর্ক কী? আসুন সেটাই জেনে নেওয়া যাক। বর্তমানে FIFA বিশ্বকাপ জয়ী টিমের হাতে যে ট্রফিটি তুলে দেওয়া হয় সেটির শুরু ১৯৭০ সালে।কিন্তু বিশ্বকাপ ফুটবলের শুরু ১৯৩০ সালে। ১৯৩০ থেকে ১৯৭০ অবধি বিজয়ী দলের হাতে তুলে দেওয়া হত যে ট্রফি সেটি হল জুলে রিমে ট্রফি। এই জুলে রিমে ছিলেন FIFA এর সভাপতি। ফিফার ইতিহাসে তিনি সবথেকে বেশী দিন, প্রায় ৩৩বছর ফিফার সভাপতি ছিলেন। ১৯২১ থেকে ১৯৫৪ পর্যন্ত। তিনি ফরাসী ফুটবল ফেডারেশনেরও সভাপতি ছিলেন। জুলে রিমে ট্রফিটি তাঁরই নামাঙ্কিত ট্রফি। ১৯৭০ সালে ব্রাজিল এই ট্রফি জেতে। তিনবার বিজয়ী হবার কারণে তৎকালীন নিয়ম অনুসারে ট্রফিটি চিরতরে ব্রাজিলের ঘরে চলে যায়। ১৯৭৪ সাল থেকে আত্মপ্রকাশ করে নতুন বিশ্বকাপ ট্রফি। নিয়ম ও পরিবর্তন করা হয়। এই ট্রফি এখন চিরকালের জন্য কেউ জিততে পারেনা।

যে ট্রফি সারা বিশ্বের ফুটবল চ্যাম্পিয়ন দের হাতে তুলে দেওয়া হবে তার নিরাপত্তা নিয়ে কোনো প্রশ্নই থাকেনা। কিন্তু এত নিরাপত্তা সত্বেও ১৯৬৬ সালের ২০শে মার্চ বিশ্বকাপ ফুটবল শুরু হবার মাত্র চার মাস আগে, ইংল্যান্ডের ওয়েষ্টমিনস্টার সেন্ট্রাল হলে প্রদর্শনীর সময় চুরি হয়ে যায় জুলে রিমে ট্রফি।

এবং খুবই আশ্চর্যজনক ভাবে এর ঠিক ৭দিন পর দক্ষিণ লন্ডনের এক পার্কের ঝোপ থেকে খবরের কাগজ মোড়া অবস্থায় ট্রফিটিকে উদ্ধার করে একটি কুকুর। তার নামই পিকলস। বিশ্বের কপালে ভাঁজ ফেলে দেওয়া এই রহস্যের সমাধান করে রাতারাতি ইতিহাসের পাতায় জায়গা করে নেয় পিকলস।

তবে এত কিছুর পরও ট্রফিটিকে রক্ষা করা যায়নি। ১৯শে ডিসেম্বর ১৯৮৩ সালে ট্রফি আবার চুরি যায়। চারজন সন্দেহভাজন ধরা পরে, শাস্তিও হয়। কিন্তু ট্রফিটি উদ্ধার করা যায়নি। অনুমান করা হয় ওটি গলিয়ে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছিল। এই মহামুল্যবান ট্রফিটির শুধুমাত্র নিচের অংশটিই বর্তমানে জুরিখে FIFA এর হেডকোয়ার্টার এ প্রদর্শনীর জন্য রাখা থাকে।