রাশিয়া বনাম সৌদি আরব। আজ থেকে শুরু হচ্ছে ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধ।

আজ রাশিয়াতে নতুন করে আরেকটা 'রুশ বিপ্লব' শুরু হতে চলেছে। মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে রাশিয়া ও সৌদি আরবের মধ্যে ফুটবলের যুদ্ধের মধ্যে দিয়ে শুরু হতে চলেছে ২১তম ফুটবল বিশ্বকাপের।

ফুটবলের ২১তম যুদ্ধের আগে থাকছে জমকালো অনুষ্ঠান। গত কাল রাশিয়ান কোচ স্টানিসলাভ চেরচেসভ বলেন, ‘আমরা প্রথম দিন থেকে প্রতিপক্ষকে নিয়ে পর্যালোচনা করেছি। কোনো গ্রুপেই সহজ প্রতিপক্ষ নেই। প্রথম ম্যাচটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটিই লক্ষ্য ঠিক করে দেবে। নিজেদের সেরা পারফরম্যান্সে চোখ রাখছি। আমরা মাঠে নামতে প্রস্তুত।’

অপর দিকে সৌদি আরবের কোচ হুয়ান আন্তোইনি পিজ্জি জানিয়েছেন ‘প্রেসিং ফুটবল খেলে প্রতিপক্ষকে চাপের মধ্যে রাখতে চাই। যতটা সম্ভব গোলের সুযোগ তৈরি করতে হবে। এটাই আমাদের লক্ষ্য।’


বিশ্বকাপে একটা সময় রাশিয়ার (তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন) দাপট ছিল। সর্বোচ্চ অর্জন ১৯৬৬ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল। তিনবার কোয়ার্টার ফাইনাল (১৯৫৮, ১৯৬২, ১৯৭০) খেলার ইতিহাস রয়েছে রাশিয়ানদের। গত বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয় তারা।

আর অপরপ্রান্তের সৌদি আরবের এ নিয়ে পাঁচবার বিশ্বকাপ খেলতে নামছেন। গত দুই আসরে উত্তীর্ণ হতে পারেনি তারা। বিশ্বকাপে সৌদির সেরা সাফল্য ১৯৯৪ বিশ্বকাপের নকআউট পর্ব (শেষ ষোলো)। ফিফা ক্রমতালিকায় সৌদি আরব ৬৭ তম স্থানে রয়েছে। এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচ খেলবে সৌদি আরব।

অতীতে একবারই মুখোমুখি হয় রাশিয়া ও সৌদি আরব। ১৯৯৩ সালের প্রীতি ম্যাচটিতে ৪-২ গোলে হার মানে রাশিয়া। গত মাস থেকে বেশ কয়েকটি প্রস্তুতি ম্যাচে নিজেদের ঝালিয়ে নেয় সৌদি আরব। পাঁচ ম্যাচের দুটিতে জয় পায় তারা। সবশেষ খেলায় সৌদির বিপক্ষে জয় (২-১) পেতে ঘাম ঝরাতে হয় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে। তাই ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধের প্রথম খেলাটির দিকে আগ্রহের সাথে তাকিয়ে আছে গোটা বিশ্ব।

 

পড়ুনঃ “জোর করে চাপিয়ে দেওয়া বোরখা পরতে চাই না” প্রতিযোগিতা থেকে নাম প্রত্যাহার করলেন গ্র্যান্ডমাস্টার সৌম্যা স্বামীনাথন