নরেন্দ্রপুর খুনে ঘনীভূত হল উদঘাট রহস্য, বাগান বাড়িতে পাওয়া গেল মোট ৩ লিটার রক্ত।

১০ দিক ২৪ ব্যুরো : তদন্তকারীদের অনুমান, বাগানবাড়ির সম্পত্তি নিয়ে গোলমালের জেরেই খুন করা হয়েছে প্রদীপ ও আলপনাকে প্রতিহিংসা নিতেই এই খুন বলে প্রাথমিক তদন্তে মনে করছে পুলিশ। ২৪ ঘন্টা কেটে গেলেও এই তদন্তের গতি অতি ধির তা জানিয়েছে পুলিশ। তার মধ্যেই পুলিশ তদন্তে উত্তেজিত তথ্য সামনে নিয়ে আসলো।

ঘটনাস্থলে পাওয়া গিয়েছে ৩ লিটারের বেশি রক্ত। ফরেন্সিক দলের অনুমান বৃদ্ধার মাথায় একটি মাত্র আঘাতের চিহ্ন মিলেছে।যার থেকে এত রক্তক্ষরণ হওয়াটা সম্ভব নয় বলেই জানিয়েছেন ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞদের।বৃহস্পতিবার ফের একবার রক্তের নমুনা সংগ্রহ করেছে ফরেন্সিক দলের প্রধানরা।এর মধ্যে থাকতে আততায়ীদের রক্তও মিশে থাকতে পারে বলে মত ফরেন্সিক দলের। যদিও এই মত অনুমানের ভিত্তিতেই জানিয়েছেন ফরেন্সিক দলের নেতারা।

খেয়াদহের তিউড়িয়ার বাগানবাড়িতে তদন্তে আসে ফরেন্সিকের দু’টি দল।ঘর আর বাথরুম থেকে রক্তের নমুনা সংগ্রহ করার পাশাপাশি ঘর থেকে ফিঙ্গারপ্রিন্টের নমুনাও সংগ্রহ করা হয়।তাদের অনুমান মূলত, সম্পত্তির জেরেই গোলমাল শুরু হয় এবং সেখান থেকেই খুনের ঘটনাটি ঘটে।দম্পতির ময়না-তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে অনুমান, ঘুমন্ত অবস্থায় তাঁদের দু’জনকে বিছানার চাদর দিয়ে পেঁচিয়ে হাত বেঁধে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে।বাধা দিতে গেলে শাবল দিয়ে মাথায় আঘাত করা হয়েছে।তাঁদের শরীরের বেশ কয়েকটি জায়গায় আঘাতের চিহ্নও পাওয়া গেছে।পুলিশের ধারণা এই খুন পরিকল্পিতভাবেই করা হয়।যদিও এই বিষয় নিয়ে যথেষ্ট বেশি ধোঁয়াশায় রয়েছে পুলিশ।