পুরুলিয়ার তৃণমূলের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে এবার মাঠে নামলেন মুকুল রায়।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ বিগত বেশ কয়েকটি নির্বাচনে সন্ত্রাস যেন নির্বাচনের সমার্থক শব্দ হয়ে গিয়েছে। যার রেশ বজায় রয়েছে রাজ্যে শেষ অনুষ্ঠিত পঞ্চায়েত ভোটকে কেন্দ্র করেও। বোর্ডগঠনকে কেন্দ্র করে এখনও অব্যাহত হিংসা, অশান্তি ও গুলি-বোমার রাজত্ব। আর এসব ঘটনায় সরাসরি শাষকদলের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনলেন বিরোধীদল বিজেপি। এমনকী 'রাজ্যপুলিশকে কাজে লাগিয়ে এসব করা হচ্ছে' এই মর্মে এদিন রাজ্যপালের কাছে স্মারকলিপিও দেয়া হয় রাজ্য বিজেপির পক্ষ থেকে।

সম্প্রতি পুরুলিয়ার জয়পুরে বোর্ডগঠনকে ঘিরে হওয়া অশান্তিতে, গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান এলাকার দুই বিজেপি কর্মী। বিজেপির অভিযোগ পুলিশের গুলিতেই ওই দুই কর্মীর মৃত্যু ঘটেছে। এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত দাবী করে মৃতদের পরিবার সহ রাজ্য বিজেপির একটি প্রতিনিধিদল রাজ্যপালের কাছে একটি স্মারকলিপি জমা দেন। দলে বিজেপির ন্যাশনাল এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য মুকুল রায় সহ ছিলেন সায়ন্তন বসু, বিধায়ক মনোজ টিগ্গা, বিবেক রাঙ্গা প্রমুখ হেভিওয়েট নেতারা।

এরপরই ক্ষুব্ধ মুকুল রায় জানান "এবারের পঞ্চায়েত ভোটে ৩৪% মানুষ মনোনয়নপত্র দিতে পারেননি। এমনকি, বিরোধী প্রার্থীদের জেতার পর পুলিশের সহযোগিতায় তাদের তুলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পুরুলিয়ার জয়পুরে বিজেপি-র বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা তৈরি হয়। পুলিশ বিনা প্ররোচনায় প্রথমে লাঠি চালায়। তারপর টিয়ার গ্যাসের সেল ফাটায় – গুলিও চালায়। সেখানে বিজেপি-র দু’জন কর্মী গুলিবদ্ধ হয়। তাদের মৃত্যুর ঘটনার তদন্তের দাবিতেই আজ আমরা রাজভবনে এসেছিলাম। রাজ্যপাল আমাদের সমস্ত কথা শুনে এবিষয়ে রাজ্য সরকারের কাছ থেকে রিপোর্ট তলবের আশ্বাস দিয়েছেন।"