ইসলামপুরে পুলিশের গুলিতে ছাত্র খুন। দেখুন পুলিশের আক্রমণের লাইভ ভিডিও।

১০দিক২৪ মুতাহার কামালঃ  আন্দোলন তুলতে এসে পুলিশ ও স্কুল পড়ুয়াদের মধ্যে সংঘর্ষ। কার্যত রণক্ষেত্র ইসলামপুরের দাঁড়িভিট উচ্চ বিদ্যালয় চত্বর। পড়ুয়াদের আন্দোলন তুলতে লাঠিচার্জ, কাঁদানেগ্যাসের শেল ফাটায় পুলিশ বলে অভিযোগ। এদিকে এই আন্দোলনের মাঝেই গুলিবিদ্ধ হয়ে এক আইটিআই পড়ুয়ার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। মৃত ওই ছাত্রের নাম রাজেশ সরকার। পুরো ঘটনায় আহত নয়জন। আহতদের মধ্যে রয়েছে তিন পুলিশ কর্মী, দুই স্কুল পড়ুয়া সহ চার গ্রামবাসী।উর্দু বিষয়ের শিক্ষক নয়, প্রয়োজন বাংলা বিষয়ের শিক্ষক।

বৃহস্পতিবার এই দাবীতে ছাত্র আন্দোলনকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে ওঠে ইসলামপুরের দাঁড়িভিট উচ্চ বিদ্যালয় চত্বর। পড়ুয়াদের অভিযোগ, বিদ্যালয়ে কোনও উর্দু ভাষার ছাত্র-ছাত্রী না থাকলেও তিনজন উর্দু বিষয়ের শিক্ষক নিযুক্ত করা হয়েছে। এদিকে প্রয়োজন বাংলা বিষয়ের শিক্ষকের। পড়ুয়াদের দাবী বিগত কয়েকদিন আগে এই দাবীতে আন্দোলনে নামার পর স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল যে, উর্দু বিষয়ের শিক্ষকদের যোগদান করানো হবেনা। পড়ুয়াদের অভিযোগ, এদিন ফের ওই শিক্ষকদের স্কুলে এনে যোগদান করানোর চেষ্টা করা হলে ফের আন্দোলনে নামে পড়ুয়ারা।





পথ অবরোধে সামিল হয় পড়ুয়ারা। নবনিযুক্ত তিন শিক্ষককে ঘিরে বিক্ষোভ শুরু করে পড়ুয়ারা। প্রায় ঘন্টা দুয়েক অন্দোলন চলার পর পড়ুয়াদের অবরোধ তুলতে এলে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট বৃষ্টি শুরু হয় বলে অভিযোগ। পালটা উত্তেজিতদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ ও কাঁদানেগ্যাসের শেল ফাটায় পুলিশ বলে জানা গেছে। এদিকে পুরো ঘটনায় এখনও পর্যন্ত নয়জনের আহত হওয়ার খবর মিলেছে। আহতদের মধ্যে রয়েছে দুই পড়ুয়া, তিন পুলিশ-কর্মী ও চারজন গ্রামবাসী। স্কুল চত্বরে ব্যাপক উত্তেজনা থাকায় এলাকায় প্রচুর পরিমাণে পুলিশ বাহিনী নামানো হয়েছে। বসানো হয়েছে পুলিশ পিকেট। স্কুলের প্রধান-শিক্ষক অভিজিৎ কুণ্ডুকে এদিনের ঘটনা নিয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, যা বলবে প্রশাসন বলবে। এই ঘটনার প্রতীবাদ জানিয়ে আগামী ২২ তারিখ রাজ্য জুড়ে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে SFI রাজ্য কমিটি।