পেট্রোল,ডিজেলের পর এবার আকাশ ছুঁল সারের দাম। মাথায় হাত চাষি দের।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ  এবার পেট্রোল,ডিজেল এর পাশাপাশি যেনো "সারের "দামও ছুঁতে চাইছে বল্লভভাই প্যাটেল এর মূর্তির উচ্চতা। ক্রমশ ম্লান হচ্ছে কৃষকের মুখের হাঁসি। একদিকে আকাশ ছোঁয়া চাষের খরচ। লাভের কথা বাদ দিলেও চাষের খরচ জোগাড় হচ্ছে না মাঠের ফসল বিক্রি করে।

এক কৃষকের কথায় "আচ্ছা দিন অবশ্যই এসেছে তবে সেটা আমাদের নয় বড় বড় শিল্পপতিদের , এর আমাদের জন্য কালে দিন "। এক কৃষক আরও বলেন "যখন শুনি নবান্ন বলছে গত কয়েক বছরে কৃষক দের আয় তিন গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে , তখন হাঁসা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই"।




সামনে আলুর মরসুম এই আলুর মরসুমে যে সার বেশি প্রয়োজন সেই সারের দাম বেড়ে গেছে প্রায় ৩০ শতাংশ। এই সময় কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে না কৃষি দপ্তর। ১০:২৬:২৬ (ইফকো) এ রাজ্যে বিকছে ১৪০০ টাকা দরে। দাম বেড়েছে ৩২৫টাকা। প্রায় ৩০ শতাংশ। আগের বছরে আলুর দাম ছিলো না। এখনো হিমঘরে পরে আছে সেই আলু। সেই আলু কিভাবে বিক্রি হবে সেই চিন্তা এবং সারের দাম নিয়ে আর এক নতুন চিন্তা এ জর্জরিত কৃষকেরা। চার বছর আগে জে সার(ডি.এ.পি.) দাম ছিল ১২২০ টাকা বস্তা এখন সেই সারের দাম হয়েছে ১৪৮০ টাকা বস্তা , বস্তায়(৫০ ) দাম বেড়েছে ২৬০ টাকা। সুপার ফসফেট সারের দাম আগে ছিলো ৩৮০ টাকা বস্তা এখন সেই সারের দাম বেড়েছে ৭০ টাকা মানে এখন দাম ৪৫০ টাকা। পটাশ এর দাম ২০১৪ সালে ছিলো ৭৫০ টাকা চার বছরে ২০০ টাকা দাম বেড়ে এখন দাম হয়েছে ৯৫০ টাকা।




রান্নার গ্যাসের মতোই সার কিনতে গিয়ে মাথায় হাত দিতে হচ্ছে কৃষকদের। সারের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আলু বীজ এর দাম। পাঞ্জাব থেকে আসা এক বস্তা(৫০) আলু বীজের দাম ছিলো ১৪০০ টাকা আর তা এখন দাম বেড়ে হয়েছে ১৫০০ টাকা বস্তা। বীজ ও সার এই উভয়ের ই চড়া দামে তীব্র সংকটে আলু চাষিরা।এবং এই সমস্যায় যখন ভুক্তো ভুগী আলু চাষিরা ঠিক তখন নির্বিকার রাজ্য সরকার।