"মোদী মমতার দোস্তি" নিয়ে স্ট্যাটাস দিয়ে তৃণমূলের হাতে আক্রান্ত যুবক।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ অম্বিকেশ মহাপাত্রর মতো, মত প্রকাশের স্বাধীনতার ওপর আবার বাংলার বুকে নেমে এল আক্রমণ। হোয়াটঅ্যাপে মোদী মমতার "সামনে কুস্তি, পিছনে দোস্তির" তথ্য পোস্ট করতেই ভয়ানক ভাবে আক্রমণ নামিয়ে আনা হল যুবকের ওপর। যুবকের নাম, রিয়াজ বক্স। তিনি আনোয়ার শাহ রোড সংলগ্ন বিশ্বাস পাড়ার বাসিন্দা। জানা যাচ্ছে, রবিবার সন্ধ্যায় তিনি তার হোয়াটসঅ্যাপে একটি স্ট্যাটাস পোস্ট করেন। যেটি ছিল মোদী এবং মমতার সখ্যতা নিয়ে, আর এই স্ট্যাটাস দেখেই তৃণমূল রিয়াজ এবং তার পরিবারের ওপর আক্রমণ নামিয়ে আনে।




ঠিক কি হয়েছিল সেদিন? হোয়াটসঅ্যাপে স্ট্যাটাস দেখে প্রথমে রাতে তৃণমূল কর্মী সোমনাথ পাল রিয়াজ কে ফোন করে হুমকি দিতে থাকেন, যে কেন তিনি এমন পোস্ট করেছেন। তার পরেই কয়েকটি অটোয় করে রিয়াজের বাড়ি ঘিরে ফেলে তৃণমূল দুষ্কৃতিরা। হাতে বাঁশ লাঠি দিয়ে প্রথমে দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকেই শুরু হয় এলোপাথাড়ি আক্রমণ। আক্রান্ত হন পঞ্চাশ ঊর্ধ্ব রিয়াজের ছোট কাকিমা এবং রিয়াজের বৌদি। রিয়াজের ছোট কাকিমার ব্লাউজ পর্যন্ত ছিঁড়ে ফেলে দুষ্কৃতিরা। এর পরেই রিয়াজ কে লাঠি দিয়ে ফেলে মারা শুরু হয়। রিয়াজ কে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হন প্রতিবেশীরাও। প্রায় ১৫ মিনিট তাণ্ডবের পরে এলাকা ছেড়ে চলে যায় তৃণমূল দুষ্কৃতি বাহিনী। এর পরে পুলিশ এসে রিয়াজ কে তৃণমূলের হাত থেকে বাঁচাবার নাম করে থানায় নিয়ে যায়। তার পর উল্টে তৃণমূল কর্মী দের খুনের হুমকি দেবার মিথ্যা মামলায় তাকেই গ্রেফতার করা হয়। যদিও আলিপুর আদালত থেকে রেহাই পেয়েছেন তিনি।




জানা যাচ্ছে, তৃণমূল কর্মী সোমনাথ পাল মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের ঘনিষ্ঠ। এই ঘটনার ধিক্কার জানিয়েছে সমাজের বিভিন্ন অংশের মানুষ। রিয়াজ সি পি আই(এম) রাসবিহারী ২ নম্বর এরিয়া কমিটির পার্টি কর্মী। পুলিশের বেআইনি গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিশ্বাস পাড়া লেনে, রিয়াজের বাড়ির পাশে জনসভা করেন বিশিষ্ট জনেরা। । বক্তা ছিলেন আজিজুল হক, বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য ও মন্দাক্রান্তা সেন । সকলেই এই ঘটনা কে ধিক্কার জানিয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই রাজ্যে যে গণতন্ত্র নেই, এই ঘটনা সেই দিকেই ইঙ্গিত করলো বলে মনে করছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।