তৃণমূলের সাথে জোটে যাবার কোনো সম্ভাবনাই নেই। জানিয়ে দিলেন হান্নান মোল্লা।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ কিছুদিন আগেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন সামনের লোকসভা ভোটে মোদী অর্থাৎ বিজেপিকে হারাতে গেলে জোট বাঁধতে হবে। সেক্ষেত্রে তিনি বাংলায় তাঁর অন্যতম বিরোধী দুই শক্তি বামপন্থীরা ও কংগ্রেসকে আহ্বান জানিয়েছিলেন জোটে যোগ দেবার জন্য। কিন্তু বৃহস্পতিবারেই ছোটের তথ্য সম্পূর্ণ নস্যাত করে সিপিআইএমের পলিটব্যুরো সদস্য হান্নান মোল্লা জানালেন ২০১৯ লোকসভা ভোটে তৃণমূলের সাথে জোটে যাবার কোনো সম্ভাবনাই নেই।

বস্তুত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি বিরোধী একটি ফেডারেল ফ্রন্ট গড়ে তুলতে চাইছিলেন। ১৯শে জানুয়ারি তৃণমূলের ব্রিগেড সমাবেশে দেশের ২৩টি রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা ব্রিগেড মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। যদিও সিপিআইএম বা দেশের বামপন্থী শক্তিগুলির কোনো প্রতিনিধি সেখানে ছিলনা।

কিন্তু এই ব্রিগেড পরবর্তী সময় ওই ২৩টি দলের নানান নেতারা বিজেপি বিরোধী লড়াইএ কংগ্রেসের উপরই বেশী ভরসা করতে শুরু করলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই জোটের প্রসঙ্গ তুলে আনেন।




যদিও এতগুলি দলের জোট প্রসঙ্গেও মুখ খুলেছেন হান্নান মোল্লা। তিনি বলেছেন "মোদিবিরোধী কয়েকটি দল মিলে ভোটের আগে যে অভিন্ন কর্মসূচি তৈরির চেষ্টা করছে, তা সফল হবে বলে তিনি মনে করেন না । এত দলের মধ্যে আসন ভাগাভাগিও যে একটা অবাস্তব বিষয় হয়ে দাঁড়াবে, সেটাও তিনি স্মরণ করিয়ে দেন। তবে ভোটের পর অভিন্ন ন্যূনতম কর্মসূচির ব্যাপারে বিরোধী দলগুলো এগোলে সুফল আসতে পারে।"

বুধবার দিল্লীর যন্তরমন্তরে আম আদমী পার্টি মোদী বিরোধী যে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছে বর্তমানে সেখানেই আছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।




মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন রাহুল গান্ধী, অরবিন্দ কেজরীওয়াল, শারদ পাওয়ার, শারদ যাদব ও ফারুক আবদুল্লার মত হেভিওয়েট নেতৃত্বরা। এরপর শারদ যাদবের বাড়ীতে মোদীবিরোধী বৈঠকেও যোগ দেন মমতা।