খোঁপায় করে মাদক পাচার। বিমান থেকে গ্রেফতার অভিনেত্রী।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ দেখে মনে হবে যেন কোনো আধুনিক যুগের মেয়ে।পোশাক দেখে তাই মনে হচ্ছে। চুল আছে ঠিক ঠাক করে বাঁধা এবং-খোঁপা করা।তার পরনে রয়েছে আধুনিক পোশাক। বিমানবন্দরে অনেকেই তাঁকে চেনেন কলকাতা মাঝারি মাপের মডেল হিসাবে।

বিমানে ওঠার আগে চেকিংয়ের জন্য ঘরে মহিলা তল্লাশিকরার সময় ওই তরুণীর খোঁপায় সন্দেহ হয় সিকিউরিটি দের অনুরোধ করলেন খোঁপা খুলতে। প্রথমে রাজি হচ্ছিলেন না ওই অভিনেত্রী মডেল। শেষ এ খোঁপা খুলতে বাধ্য হন ওই তরুণী খোঁপা খুলতেই বেরিয়ে এল প্লাস্টিকের প্যাকেটে মোড়া এক মুঠো রঙিন ট্যাবলেট। সেখানেই তাঁকে আটক করে সিকিউরিটি গার্ড কারণ সিকিউরিটি গার্ড দের সন্দেহ হয় ওই ট্যাবলেট কোনও নিষিদ্ধ মাদক। পরে ওই ট্যাবলেট পরীক্ষা করে জানা যায় ওই ট্যাবলেট নিষিদ্ধ মাদক এমডিএমএ ।

আসুন জেনে নিই কে এই তরুণী? এই তরুণীর আদি বাড়ি বসিরহাটে ওই তরুণী কয়েক বছর ধরে মুম্বাইয়ের বাসিন্দা। মুম্বাইয়ে মডেলিংয়ের-কাজ করে। এবং অনেক ছবিতে নায়িকার ভূমিকাতেও অভিনয় করেছেন এই তরুণী। এর পাশাপাশি তিনি বাংলা ছবিতেও অভিনয় করেছেন ।

সূত্রে খবর, তিনি কলকাতার একটি পার্টিতে গিয়ে সেখান অনেকেই বিভিন্ন ধরনের মাদক নিচ্ছিলেন। ওখান থেকেই এমডিএমএ সংগ্রহ করেন ওই মডেল। জেরার মুখে ওই মডেল দাবি করেন , তিনি প্রথমবার এমডিএমএ নিয়েছেন। সূত্রে খবর,তিনি এও বলেন ওই মাদক তিনি নিজেই ব্যবহার করার জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন। ওই অভিনেত্রী আরও জানিয়েছেন, ওই দিনের পার্টিতে কলকাতা এবং মুম্বাইয়ের মডেলিং এবং ফ্যাশন জগতের অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

পরবর্তীতে ওই মডেলকে নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরোর(এনসিবি)-র হাতে তুলে দেওয়া হয়। । তাঁকে আদালতে পেশ করা হবে । এই মুহূর্তে তিনি জেলে। কলকাতা গোয়েন্দা পুলিশের এক কর্তার কথায় শহরে এমডিএমএ-র মত পার্টি ড্রাগের রমরমা ক্রমশ বাড়ছে । তাঁরা বিভিন্ন সময়ে অভিযোগ পেয়েছেন শহরের অনেক প্রাইভেট পার্টিতে অবাধে বিকচ্ছে পার্টি ড্রাগ। তিনি বলেন আমরা পুরোপুরি নিশ্চিত নই ওই সেলেবরা নিজেরা পার্টি ড্রাগ ব্যবহার করছেন কি না। তবে ওই পার্টিগুলোর সঙ্গে সংযুক্ত অনেকেই ওই মাদকের কারবারের সঙ্গে যুক্ত।”

একটি শক্তিশালী চক্রের অস্তিত্ব যারা সরাসরি মাদক কারবারে যুক্ত । বিমানবন্দরে এই মাদক উদ্ধার নিয়ে কপালে চিন্তার ভাঁজ গোয়েন্দাদের।