কেরালা পারলে আমরা কেন পারব না? পেট্রোলের দাম প্রসঙ্গে সুজনের প্রশ্ন।

ডিজেলের দামের সঙ্গে পাল্লা দিতে বাড়ছে পরিবহণ এর ভাড়া। সাধারণ বাসযাত্রী দের দিতে হবে অধিক ১ টাকা। অর্থাৎ আগে যেখানে যেতে আপনাকে ৬ টাকা দিতে হত আগামীকাল থেকে আপনাকে ৭ টাকা দিতে হবে। এবং মিনিবাসে উঠলেই এখন দিতে হবে ৮ টাকা। প্রতি স্তরে বাসভাড়া বাড়ছে ১ টাকা করে।

বাড়ছে ট্যাক্সির ভাড়াও, তবে এক্ষেত্রে ঠিক কত টা ভাড়া বাড়বে তা পরিষ্কার ভাবে কিছু জানানো হয়নি। আজ নবান্নে বাসমালিকদের সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকে বসেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। আজকের বৈঠকের পরেই এই ঘোষণা করা হয়। ২০১৪-র পর এই প্রথম বাসভাড়া বাড়ল। বাড়ছে জলপথ পরিবহণের খরচও, লঞ্চের ভাড়া ও। তবে সরকারের পক্ষে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে ডিজেলের দাম কমলে সমানুপাতিক ভাবে ভাড়াও কমবে। তবে আগামী কাল বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হচ্ছে কিনা সে নিয়ে ইতি মধ্যেই ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে।

বাস ভাড়া বৃদ্ধি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে সিপিএম নেতা সুজন বাবু জানান, "আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমলেও জনসাধারণ কে কম দামে তেল দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার। উল্টে দাম না কমানোর জন্য তেলের ওপর ট্যাক্স কে বাড়িয়ে ৩ গুন করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার মানুষ কে লুঠ করছে। রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকারের পথে হেঁটেই ট্যাক্স বাড়িয়ে দিচ্ছে, যার ফলে সাধারণ মানুষ অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছে।" তিনি আরও জানান যেখানে বামপন্থী সরকার কেরালাতে এই পরিস্থিতে ৫৬০ কোটি টাকা ট্যাক্স ছাড় দিয়ে মানুষের সাহাজ্য করছে, সেখানে কেন অনান্য রাজ্য বা কেন্দ্র সে পথে হাঁটছে না?

কিছু দিন আগেই তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতীবাদে মোদীকে ৯ পয়সা দান করে অভিনব কায়দায় প্রতীবাদ জানান এক ব্যক্তি। সাধারণ মানুষের দুর্দশায় মোদী সরকার কি ভূমিকা নেয়, সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।