বিজেপির নবান্ন অভিযানে 'পাগড়ি' নিয়ে মুখ খুললেন অমরিন্দর

গড়ি  খোলা নিয়ে জল্পনা সেই বলবিন্দর সিংহের থেকে একটি নাইন এমএম পিস্তলও উদ্ধার করেছিল পুলিশ।  

১০ দিক ২৪ঃ ফের মমতাকে আক্রমণ অমরিন্দর  সিং এর। বিজেপির নবান্ন অভিযান থেকে শুরু এই জলঘোলা। শিখ সম্প্রদায়ের এক জনের পাগড়ি খোলা নিয়ে বিতর্কে কি বললেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী দেখুন। ওই কাণ্ডে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আর্জি জানিয়েছেন তিনি। এবং একই মত শিরোমণি অকালি দল (এসএডি)-এর প্রধান সুখবীর সিংহ বাদল। 

 বৃহস্পতিবার বিজেপির ‘নবান্ন চলো’ অভিযানে। একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয় সেদিন সন্ধ্যা থেকেই। তাতে দেখা যায় এক শিখ যুবককে আটক করছে পুলিশ। তখন টানাহ্যাঁচড়ায় তাঁর পাগড়িটি খুলে যাচ্ছে। শুক্রবার  এই নিয়ে বলেন হরভজন সিং।  

পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর তরফে তাঁর সংবাদমাধ্যম উপদেষ্টা রবীন ঠাকরাল টুইটারে লিখেছেন, ‘এটা ঠিক হয়নি। পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ এক শিখ যুবককে কী ভাবে হেনস্থা করছে, গ্রেফতারের সময় পাগড়ি খুলে দিচ্ছে, তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংহ। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করায় সংশ্লিষ্ট পুলিশকর্মীর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আর্জি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।’

টুইটারে এসএডি প্রধান লিখেছেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ নিরাপত্তা কর্মী বলবিন্দর সিংহের উপরে যে ভাবে বিদ্বেষপূর্ণ আক্রমণ চালিয়েছে এবং তাঁর পাগড়িকে অপমান করেছে তার তীব্র নিন্দা করছি। এই অপমান সারা বিশ্বের শিখ সম্প্রদায়কে ক্ষিপ্ত করেছে। সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মমতাজির কাছে আর্জি জানাচ্ছি।’

পাগড়ি  খোলা নিয়ে জল্পনা সেই বলবিন্দর সিংহের থেকে একটি নাইন এমএম পিস্তলও উদ্ধার করেছিল পুলিশ।  

পুলিশের দাবি,বলবিন্দর নিজেকে বিজেপি যুবমোর্চার রাজ্য কমিটির সদস্য তথা ব্যারাকপুরের বাসিন্দা প্রিয়াঙ্গু পাণ্ডের ‘দেহরক্ষী’ বলে পরিচয় দেন। তাঁর কাছ থেকে পাওয়া নথি অনুযায়ী, তিনি জম্মু-কাশ্মীরের রজৌরি জেলার বাসিন্দা। 

কিন্তু পাগড়ি খুলে নেওয়া মতো কিছু করলো কেন পুলিশ এই নিয়ে অনেকেই পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন।