'১০ লক্ষ টাকা ঘুষ দিন, আর জিতে নিন সরকারি চাকরি।'- এভাবেই নাকি বিক্রি হচ্ছেচাকরি।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ  ২০১৮ সালে বন দফতরে চাকরি পেয়েছেন ২২৫ জন, যার মধ্যে নাকি ৩৫ জন মোটা অঙ্কের টাকা ঘুষ দিয়ে চাকরি পেয়েছে। এমনটাই দাবি করেছেন বন দফতরের একাংশ কর্মীর। জানা যাচ্ছে যারা এই দাবি করছেন তারা প্রত্যেকেই তৃণমূল কর্মী সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত।

তাদের বক্তব্য এবারে ২২৫ জন বন দফতরে চাকরি পেয়েছেন। যার মধ্যে শুধু মাত্র মালদা থেকে চাকরি পেয়েছেন ৩৫ জন। আর এই মালদা থেকে যে ৩৫ জন চাকরি পেয়েছে তাদের সবাই নেতা দের ঘুষ দিয়ে চাকরি হাতিয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে। মেধার ভিত্তিতে নয়, অর্থের ভিত্তিতে এই নিয়োগ হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এই ৩৫ জন নাকি প্রত্যেকে ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা ঘুষ দিয়েছেন। অর্থাৎ ২ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা থেকে ৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার মধ্যে দুর্নীতির মাধ্যমে এই চাকরি পাইয়ে দেওয়া হয়েছে বলে তারা জানান।
তবে রাজ্যের বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বাবু পরিষ্কার ভাবে এই অভিযোগ কে অস্বিকার করেছেন এবং এই অভিযোগ কে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। তবে এটাই প্রথম নয়, রাজ্যের পরীক্ষা গুলিতে যে ঘুষের মাধ্যমে ভর্তি হচ্ছে তার প্রতীবাদে অনেক সাধারণ ছাত্র ছাত্রী ও পথে নামছে।

 

 


গতকাল রাজ্য সরকারের ওপর ভরসা করতে না পেরে WBCS ২০১৭ পরীক্ষায় ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ জানিয়ে গতকাল পথে নামে ছাত্রছাত্রীরা। পরীক্ষায় ব্যাপক দুর্নীতির বিরুদ্ধে লাগাতার আন্দোলনের ডাক দিয়েছে PSC অফিসের এর সামনে বিক্ষোভ দেখায় তারা। রাজ্য সরকার এর বিরুদ্ধে কতটা সদর্থক ভূমিকা পালন করে সেদিকেই তাকিয়ে রাজ্যবাসি।

 

 

পড়ুনঃ WBCS ২০১৭ পরীক্ষায় ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ জানিয়ে পথে নামল ছাত্রছাত্রীরা।