জনসংযোগ করতে গিয়ে বিজেপি নেতাদের 'না' শুনতে হল যাদের কাছে।

১০দিক২৪ঃ রাজনৈতিক লড়াইের পাশাপাশি, এবার সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ দের পাশে টানার চেষ্টা তে নেমেছে বিজেপি। হটাত সকাল সকাল বিভিন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, এমন কি হিসেব কসে যাদের পাশে টানা যেতে পারে এমন সব দোদুল্যমান রাজনীতিবিদ দের দোরগোড়ায় পৌঁছে যাচ্ছেন রাজ্য বিজেপির হেভি ওয়েট নেতারা। আর তার ছবি চলে যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। আর ট্যাগ লাইন দেওয়া হচ্ছে #SamparkforSamarthan, অর্থাৎ 'সমর্থনের জন্য সম্পর্ক'।

তবে জনসংযোগ করতে গিয়ে ও ঘটেছে বিপত্তি। রাজ্যের অনেক চেতনা সম্পূর্ণ বুদ্ধিজীবী সমাজের দ্বারা প্রতাক্ষিত হয়েছে বিজেপি।

পল্লীগীতি থেকে ভাটিয়ালী, সারি, জারি, বাউল—সব ধারার বাংলার মাটির গানের এক অনন্য শিল্পী অমর পাল। সত্যজিত রায়ের ‘‌হীরক রাজার দেশে’‌ ছবিতে গান গাওয়া এই শিল্পীর বারিতে ছুটে জান বিজেপি নেতারা। তবে ৯৬ বছর বয়সেও নিজের প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর কে বজায় রেখেছেন তিনি। বিজেপির প্রস্তাবে না বলেই জানিয়েছেন তিনি।

পদ্মভূষণ, দাদাসাহেব ফালকে, আরো বহু পুরস্কারে সম্মানিত কিংবদন্তি অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের সাথে জনসম্পর্ক করলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক শ্রী রাহুল সিনহা। জানা যাচ্ছে তিনি কেন্দ্রীয় সম্পাদক শ্রী রাহুল সিনহাকে জানিয়েছেন "মোদীর বিভিন্ন জনবিরোধী সিদ্ধান্ত দেখার পরে মোদীকে সমর্থন করার কোনো প্রশ্নই আসেনা।"

এছাড়া অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অশোক গাঙ্গুলি, অভিনেতা মনোজ মিত্র, বাঙালি অভিনেতা ও থিয়েটার পরিচালক রূদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত, লেখক সন্তোষ রানা, আইনজীবী অরুনাভ ঘোষ, নাট্যকার চন্দন সেন। প্রত্যেকের দ্বারাই না শুনতে হয়েছে বিজেপি নেতাদের।