ভর্তিতে টাকা তোলা! তৃণমূল কি শুধুমাত্র TMCP র কাঁধে দোষ চাপিয়ে দায় এড়াতে পারে?

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ "ছাত্র সংগঠনের কাজ টাকা তোলা নয়। নেতারা মনে রাখবেন। টাকা নয় আদার্শই বড়।" এভাবেই দলের ছাত্র সংগঠনকে বেদ বাক্য শুনিয়েছিলেন মমতা। কিন্তু কথায় আছে "চোরে না শুনে ধর্মের কাহিনী", টিমসিপির ক্ষেত্রে ও ঘটেছে একই ঘটনা। বারবার করে টাকা তুলতে বারন করাতেও কোন লাভ হয়নি। উল্টে কোন বিভাগে কত টাকা করে সিট বিক্রি হবে তার তালিকা তৈরি করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ।

মুখ্যমন্ত্রীর চোখ রাঙ্গানো তেও কিছু পরিবর্তন আসেনি। শেষ মেশ মুখ্যমন্ত্রী তথা পুলিশমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই মাঠে নামতে হল পুলিশ প্রশাসনকে। মমতা নিজে আসরে না নেমে, পুলিশ কে নামানো হয়েছে এ ঘটনা ঠেকাতে। পুলিশের তরফে দেওয়া হয়েছে বিজ্ঞপ্তি। ঘটনা জানতে পেরেই দ্রুত গ্রেফতারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আর তাতেই পুলিশের জালে ফেঁসেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বড় বড় রাঘব বোয়ালরা।

আর এবারে কলেজে ভর্তি করিয়ে দেওয়ার নামে মোটা টাকা চাওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হলেন জয়পুরিয়া কলেজের টিমসিপির প্রাক্তন ছাত্রনেতা তিতান সাহা। সোমবার সকালে তিতানকে গ্রেফতার করেন লালবাজারের গোয়েন্দা কর্তারা। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, তিতানের বিরুদ্ধে টাকা চাওয়ার একাধিক অভিযোগ রয়েছে। রবিবার রাতে কলকাতার ১৭ টি জায়গায় অভিযান চালায় তদন্তকারী অফিসারেরা। আজ সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগেও কয়েক জন কে গ্রেফতার করা হয়েছে। এভাবেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গা থেকে ধুলো ঝাড়তে চেষ্টা করেছেন। তবে অনেকেই তৃণমূল ছাত্র পরিষদ কে শুধু মাত্র দোষী মানতে নারাজ। নারদা কেলেঙ্কারিতে টিভির পর্দায় তৃণমূলের নেতারা যেভাবে টাকা নিয়েছেন, তা দেখে সেই পথে হেঁটেই টিমসিপির নেতারা যোগ্য উত্তরসূরি হয়ে উঠছে বলে ব্যাঙ্গ করেছেন বিরোধীরা।