শূন্যপদের অবলুপ্তি ঘটিয়ে ব্যয়সংকোচনের পথে রাজ্যসরকার।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ রাজ্যে রয়েছে ২ লক্ষ ৯০ হাজার শূন্যপদ। কিন্তু তাতে চাকরি পাবার সম্ভাবনা তৈরী হচ্ছে না কোনোমতেই। রাজ্যের বেকার যুবক যুবতীদের নিয়োগ করার বদলে এই পদগুলির অবলুপ্তি ঘটাতেই তৎপর হয়েছে রাজ্যসরকার। সরকারের ব্যয় কমাতে মুখ্যসচিব মলয় দে কে চেয়ারম্যান করে কমিটি তৈরী করা হয়। নবান্নে সেই কমিটির উচ্চপর্যায়ের বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান প্রয়োজন অনুসারে সরকারী শূন্যপদ 'অ্যাডজাষ্ট- রিঅ্যাডজাষ্ট' করা হতে পারে। অর্থাৎ সোজা ভাষায় শূন্যপদের অবলুপ্তি।

জনৈক সরকারী কর্মচারী শ্যামলকুমার মিত্রের করা আর টি আই এর উত্তরে সরকারী সংস্থা ব্যুরো অফ অ্যাপ্লায়েড ইকনমিক্স অ্যান্ড স্ট্যাটিসটিক্স জানিয়েছে বর্তমানে রাজ্যে মোট শূন্যপদ ২ লক্ষ ৯০ হাজার। সরকারী দপ্তরে শূন্যপদ ১ লক্ষ ৯৯ হাজার৪৭০ টি। রাজ্য পুলিশে শূন্যপদ ৫৩ হাজার ৩২৩ টি।

শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে চরম বিশৃঙ্খলা আগেই তৈরী হয়েছে। টেট কেলেঙ্কারী বা শিক্ষক নিয়োগে রাজ্য সরকারের নেতিবাচক মনোভাবের ফলে নতুন শিক্ষক নিয়োগ প্রায় হয়েইনি। জানা গেছে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক মিলিয়ে এখানেও শূন্যপদ প্রায় ৬০ হাজারের কাছাকাছি।

এছাড়াও প্রতিবছর সরকারী কর্মচারীদের অবসর গ্রহণের পর নতুন করে শূন্যপদের সৃষ্টি হচ্ছে। কিন্তু কোথাওই নিয়োগ না হয়ে অবিলম্বে তা চলে যাচ্ছে অবলুপ্তির পথে। প্রসঙ্গত বিগত কয়েক বছরে রাজ্যসরকারে নতুন করে নিয়োগ প্রায় হয়েইনি। যা হয়েছে তা সবই প্রায় পুনর্নিয়োগ। এতে বেকার যুবক যুবতী দের ক্ষোভ বাড়ছে। কোনো রকম নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি না দিয়ে ব্যয়সংকোচনের নামে পদবিলুপ্তির যে পথে হাঁটছে রাজ্যসরকার তাতে চরম ক্ষতির সামনে পড়তে হচ্ছে রাজ্যের যুবসমাজকেই। এখন দেখার সে ক্ষতির ক্ষতিপুরণের কী ব্যবস্থা নেয় সরকার। ১০দিক২৪ ব্যুরোঃ রাজ্যে রয়েছে ২ লক্ষ ৯০ হাজার শূন্যপদ। কিন্তু তাতে চাকরি পাবার সম্ভাবনা তৈরী হচ্ছে না কোনোমতেই। রাজ্যের বেকার যুবক যুবতীদের নিয়োগ করার বদলে এই পদগুলির অবলুপ্তি ঘটাতেই তৎপর হয়েছে রাজ্যসরকার। সরকারের ব্যয় কমাতে মুখ্যসচিব মলয় দে কে চেয়ারম্যান করে কমিটি তৈরী করা হয়। নবান্নে সেই কমিটির উচ্চপর্যায়ের বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান প্রয়োজন অনুসারে সরকারী শূন্যপদ 'অ্যাডজাষ্ট- রিঅ্যাডজাষ্ট' করা হতে পারে। অর্থাৎ সোজা ভাষায় শূন্যপদের অবলুপ্তি।

জনৈক সরকারী কর্মচারী শ্যামলকুমার মিত্রের করা আর টি আই এর উত্তরে সরকারী সংস্থা ব্যুরো অফ অ্যাপ্লায়েড ইকনমিক্স অ্যান্ড স্ট্যাটিসটিক্স জানিয়েছে বর্তমানে রাজ্যে মোট শূন্যপদ ২ লক্ষ ৯০ হাজার। সরকারী দপ্তরে শূন্যপদ ১ লক্ষ ৯৯ হাজার৪৭০ টি। রাজ্য পুলিশে শূন্যপদ ৫৩ হাজার ৩২৩ টি।

শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে চরম বিশৃঙ্খলা আগেই তৈরী হয়েছে। টেট কেলেঙ্কারী বা শিক্ষক নিয়োগে রাজ্য সরকারের নেতিবাচক মনোভাবের ফলে নতুন শিক্ষক নিয়োগ প্রায় হয়েইনি। জানা গেছে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক মিলিয়ে এখানেও শূন্যপদ প্রায় ৬০ হাজারের কাছাকাছি।

এছাড়াও প্রতিবছর সরকারী কর্মচারীদের অবসর গ্রহণের পর নতুন করে শূন্যপদের সৃষ্টি হচ্ছে। কিন্তু কোথাওই নিয়োগ না হয়ে অবিলম্বে তা চলে যাচ্ছে অবলুপ্তির পথে। প্রসঙ্গত বিগত কয়েক বছরে রাজ্যসরকারে নতুন করে নিয়োগ প্রায় হয়েইনি। যা হয়েছে তা সবই প্রায় পুনর্নিয়োগ। এতে বেকার যুবক যুবতী দের ক্ষোভ বাড়ছে। কোনো রকম নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি না দিয়ে ব্যয়সংকোচনের নামে পদবিলুপ্তির যে পথে হাঁটছে রাজ্যসরকার তাতে চরম ক্ষতির সামনে পড়তে হচ্ছে রাজ্যের যুবসমাজকেই। এখন দেখার সে ক্ষতির ক্ষতিপুরণের কী ব্যবস্থা নেয় সরকার।