সারাদিন জ্যোতির প্রচারে অল আউট বিজেপি।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ আজ রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর ১০৫ তম জন্মদিন। আর সেই জন্মদিনে নতুন আঙ্গিকে দেখা মিলল সিপিএম এর। আজ সারা দিন জুড়ে কার্যত বাংলার সোশ্যাল মিডিয়া সম্পূর্ণ নিজেদের দখলে রাখল সিপিএম।

দুটো হ্যাস ট্যাগ নিয়েই হাজারো সমর্থকের পোস্ট আর তাতেই ভরে গেল ফেসবুক টুইটার। সুপরিকল্পিত ভাবেই এই দিন টিতে ৩৪ বছরের গর্বের ইতিহাস তুলে ধরার জন্য ব্যবহার করা হল দুটি হ্যাস ট্যাগ, #JyotiBasuLongLive #জ্যোতিবসুলালসেলাম।

বিজেপি যেখানে কোটি কোটি টাকা খরচ করে সোশ্যাল মিডিয়া তে প্রচার চালাচ্ছে সেখানে নিজেদের কর্মী দের ব্যবহার করে আজ গোটা ফেসবুক থেকেই বিজেপি কে অল আউট করলো সিপিএম।

 

পড়ুনঃ গায়ে পারফিউমের গন্ধ মেখেই মমতার নির্দেশে আদিবাসীদের নেতা হলেন ঋতব্রত।


শুধু কর্মী নয়, সিপিএম অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে’র পাশাপাশি টুইটার, ইউটিউবেও ধারাবাহিক প্রচার চালাচ্ছে তারা। যেখানে মূলত বামফ্রন্ট সরকারের সাফল্য কেউ তুলে ধরতে চাইছেন তারা। প্রচারের ছবিতে উঠে আসছে জ্যোতি বসুর বিখ্যাত উক্তি "মানুষই ইতিহাস রচনা করে"।

তবে শুধু মাত্র মুজফ্‌ফর আহ্‌মেদ বাদে কোন নেতার জন্মদিন বামপন্থীরা পালন করেন না। কোন বিখ্যাত নেতার জন্মদিন কে তারা নতুন কিছু শপথের দিন হিসেবেই দেখে। আজ সকালে সূর্য কান্ত মিশ্র তার বক্তব্যে সে কথাই তুলে ধরেছেন।

 

 

পড়ুনঃ বহিষ্কৃত নেতা থেকে অভিনেতা, "চাদর প্রেমী" ঋতব্রত। ছবির শুটিং হুগলীতে।


বামপন্থী দের মতে বিজেপির বিরুদ্ধে জ্যোতি বসু দীর্ঘ লড়াই করেছেন। এক সময় সারা দেশে দাঙ্গা বিরোধী দের রোল মডেল হিসেবে নাম উঠে আসে জ্যোতি বসুর। ১৯৯২ সালের ৬ই ডিসেম্বর বিজেপি এবং তাদের দলবল যখন অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধংস করেন তখন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু, সেই সময় তিনি বিজেপি-কে 'অসভ্য ও বর্বর' বলে অভিহিত করেন। আর তাই আজ জ্যোতি বসুর ১০৫ তম জন্মদিনে সেই চেতনাকেই কর্মী দের মধ্যে ছড়িয়ে দেবার চেষ্টা চালানো হয়েছে। আজকের দিনটিতে সারা রাজ্য জুড়ে  সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী সম্প্রীতি দিবস হিসেবে পালন করে সিপিএম।

 

 

পড়ুনঃ মমতার বিরুদ্ধে একসময়ে কি কি অভিযোগ তুলেছিলেন ঋতব্রত। দেখুন ভিডিও।


আর আজকের দিনে তাই ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচার অভিযানের মাধ্যমে সামনের লোকসভা ভোটের আগে প্রস্তুতির ঘণ্টা বাজিয়ে দিল সিপিএম। তবে আজ সারা দিনে সোশ্যাল মিডিয়ার দখল রাখলেও আগামী লোক সভাতে কতগুলি আসনে তাদের দখল থাকে সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

 

 

পড়ুনঃ সিপিএম ছাড়লেন প্রাক্তন রাজ্য কমিটির নেতা, ২১ শে জুলাই দেখা মিলতে পারে তৃণমূলের মঞ্চে?