পরিবহন কর্মীদের চাকরীর নিশ্চয়তার দাবীতে ৭ ই আগস্ট পরিবহন ধর্মঘটের ডাক।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ আগামী ৭ ই আগস্ট গোটা ভারতজুড়ে পরিবহনের কেন্দ্রীয় ফেডারেশন ও ইউনিয়গুলি পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে । বিজেপি সরকারের 'মোটর ভেহিক্যাল অ্যান্ড অ্যামেন্ডমেন্ট বিল' পাশ করানোর প্রতিবাদে এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। লোকসভায় এই বিল পাশের জন্য সমর্থন করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

সরকারি, বেসরকারি সমস্ত পরিবহন কর্মীদের বক্তব্য ৩ কোটি কর্মীর চাকরির নিরাপত্তা নেই পরিবহন দপ্তরে, রাজ্য সরকারি পরিবহনে স্থায়ী কর্মীর সংখ্যা কমছে, ঠিকা শ্রমিকদের খুব অল্প টাকার মজুরীতে কাজ করানো হচ্ছে, কোনো সামাজিক সুরক্ষা দেওয়া হচ্ছেনা । সরকারি পরিবহনের দ্রুত বেসরকারিকরণের পথে হাঁটছে নরেন্দ্র মোদী; এসবের প্রতিবাদে, এই বিল বাতিলের দাবীতে, নূন্যতম মজুরি ১৮ হাজার টাকার দাবীতে, সরকারি দপ্তরে ঠিকা শ্রমিকদের স্থায়ী করণের দাবীতে, পুলিশ ও মস্তানদের জুলুম বন্ধ করা সহ ১৩ দফা দাবীতে এই ধর্মঘট।

নতুন বিলে বলা হয়েছে - কোনো ব্যক্তি মাধ্যমিক পাশ না করলে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাবেনা ফলে গরীব পরিবারের স্বল্প শিক্ষিত ছেলেদের পেটের জ্বালা থাকলেও কাজ পারবেনা। পথ দুর্ঘটনায় কেউ মারা গেলে ড্রাইভারের ৩-৭ বছরের জেল সহ 3 লক্ষ টাকা জরিমানা করা হবে। গাড়ি ও লাইসেন্স নবীকরণের দায়িত্ব RTA থেকে বেসরকারি কোম্পানীকে দেওয়া হচ্ছে, ফলে তারা যেমন খুশী ফি বৃদ্ধি করবে। থাকছেনা সরকারি পরিবহন ব্যবস্থা।  ১-২ টি বাসের মালিকরা বেসরকারি রুটে বাস চালানোর অধিকার হারাচ্ছে। বেসরকারি রুটে বাস চালাবে বৃহৎ কোম্পানীরা। তাদের আন্ডারে থাকতে হবে ছোট মালিকদের ! লড়ি, ট্রেকারকে কাজ করতে হবে কোম্পানীর অধীনে।

২০১৫ সালে ১ কোটির বেশী শ্রমিক এই আইনের বিরুদ্ধে পরিবহন ধর্মঘটে অংশ নিয়েছিলেন। ফলে মোদী সরকার এই বিল স্থগিত রাখতে বাধ্য হয়েছিল। সেই পুরনো বিল নতুন নামে মোদী সরকার পাশ করানোর পর রাজ্যসভাতেও তৃণমূল কংগ্রেসের সহায়তায় এই বিল পাশ করানোর চেষ্টা চলছে। যা পরিবহন দপ্তরের সর্বনাশ ডেকে আনবে বলে মনে করছেন পরিবহন দপ্তরের কর্মীরা।