হারানো জমি ফিরে পেতে মরিয়া সিপিএম। নেতৃত্বরাও দিলেন সেই বার্তাই।

১০দিক২৪ব্যুরো: সামনে ২০১৯এর লোকসভা ভোট। তার আগেই রাজ্যে নিজেদের হারানো জমি শক্ত করতে জোরদার পথে নামলো বঙ্গ সিপিএম। সন্ত্রাস উপেক্ষা করে কী করে কর্মীদের হারানো মনোবল ফিরিয়ে আনা যায়, সে ব্যপারেই আলোচনা শুরু হল আলিমুদ্দিন স্ট্রিটে।

দলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও নেতা মুজঃফফর আহমেদের জন্মদিবসে, মহাজাতি সদনে আয়োজিত সভা থেকে এই বার্তাই তুলে ধরলেন বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্র ও মহম্মদ সেলিমের মত নেতৃত্বরা। মূলত দিল্লীতে মোদী ও রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উভয় সরকারের বিরুদ্ধেই যে হাঁটবে বঙ্গ সিপিএম তা এই সভা থেকেই স্পষ্ট করে দিলেন সিপিএম নেতৃত্ব।

সূর্যকান্ত মিশ্র তাঁর কথায় গোটা দেশে গোরক্ষার নামে হত্যালীলা ও রাজ্যে তৃণমূলী সন্ত্রাস উভয়েরই তীব্র নিন্দা করেন। বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে শাষকদলের হিংসাত্মক আচরণ, মারধোর বা কর্মীদের ভয় দেখিয়ে ঘরছাড়া করার কড়া প্রতিক্রিয়া দেন তিনি।
বিজেপি বা অসমের নাগরিকপঞ্জি নিয়ে সুর চড়ান মহম্মদ সেলিম ও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে কটাক্ষ করে এই বাম সাংসদের বক্তব্য এখন এনআরসি নিয়ে মমতা প্রতিবাদ করলেও, এতদিন তিনিই লক্ষাধিক বাঙালির নথিপত্র যাচাই করেননি। যার জন্য সমস্যায় পড়েছেন বহু অসম নিবাসী বাঙালী।

রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার কে বিঁধে বিমান বসু বলেছেন "তারা উভয়ই মেরুকরণের রাজনীতি করছে। বিজেপির মত এখন তৃণমূলও রামনবমী, হনুমান জয়ন্তী ও জন্মাষ্টমী পালন করছে।"

সব মিলিয়ে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় ইস্যুতে দুই সরকারের বিরোধীতাই যে লক্ষ্য সিপিএমের তা এই সভা থেকেই স্পষ্ট করে দিলেন নেতৃত্বরা।