Homeরাজ্যএবার কংগ্রেস ও তৃণমূলের হেলিকপ্টারের পাল্টা বিমান এনে চমক দিল CPIM।

এবার কংগ্রেস ও তৃণমূলের হেলিকপ্টারের পাল্টা বিমান এনে চমক দিল CPIM।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ দাসপাড়াতে কংগ্রেস ও তৃণমূলের হেলিকপ্টারের পাল্টা চমক দিল CPIM বিমান এনে। বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু কে এনে । “পঞ্চায়েত নির্বাচনের মতো যদি ঠগেরা ভোট লুট করতে আসে তবে ঐক্যবদ্ধভাবে জনসাধারণকে ওই ভোট লুটের ব্যবস্থা করতে হবে। দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত চোপড়া ব্লকের দাসপাড়া ফুটবল ময়দানে বামফ্রন্ট আয়োজিত প্রার্থী সমন পাঠকের সমর্থনে জনসভায় এমনই বললেন রাজ্য বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু।

তিনি বলেন,পশ্চিমবঙ্গে মানুষের ব্যক্তি স্বাধীনতা হরণ করা হচ্ছে। গণতন্ত্রের টুটি চেপে ধরা হচ্ছে। এবং অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। তার যাতে বিহিত করা যায় এবং গণতন্ত্রের পক্ষে কাজ করা যায় তা দেখা উচিত নির্বাচন কমিশনের। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সফর প্রসঙ্গে বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু বলেন, দিল্লিতে গিয়ে বিজেপির সঙ্গে বোঝাপড়া করে এসেছেন আর এখানে এসে বলছেন মিথ্যে কথা। বলছেন সিপিএম এবং কংগ্রেস বোঝাপড়া করেছে। এত বড় ডাহা মিথ্যা কথা বলতে পারে যে সে কি মানুষ নাকি অন্য কোন গেম আছে বলেও তিনি নিজে প্রশ্ন তোলেন।

জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাজ্য রাজনীতির সমালোচনায় মুখর হয়ে বিমান বসু বলেন, এতই যখন উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি তখন এস এস সি, এম এস কে এবং স্কুল সার্ভিস কমিশন থেকে পাস করাদের রাস্তায় বসতে হচ্ছে কেন? অন্যদিকে দুই হাজার তিন সালে পঞ্চায়েত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে খুন হয়েছিল আকবর আলীর মত জনপ্রিয় সিপিএম নেতা। আর এরপর থেকেই ধীরে ধীরে চোপড়ায় প্রায় সিপিএমের লাল দুর্গের পতন হয়। কিন্তু সেই হারানো দুর্গ কে আবার ফিরে পেতে মরিয়া সিপিএম। তাই তারা যখন অস্তিত্ব রক্ষার লড়াইয়ে চরম সংকটের জায়গায় এসে পৌঁছেছেন তখন কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মিলিয়ে বিরোধী দলের লাগাতার সন্ত্রাস মোকাবেলা করতে তাদের একজোট হতে হচ্ছে ।

ঠিক সেই প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে যখন বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েত, পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদের আসন সহ বিধানসভার মতো একের পর এক আসন হাত ছাড়া হয়ে যায় তখন ওই শূন্য ময়দানে যেন একটু হলেও আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন দলীয় কর্মী সমর্থকরা। তারা চাইছেন আবার উজ্জীবিত হতে। আর তার জন্যই রাজ্য নেতৃত্ব এসে পৌঁছেছেন দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের চোপড়ার মাটিতে । তবে এই জনসভা আদৌ কতটা অক্সিজেন তুলে দিতে পারে সে প্রশ্নের উত্তর দেবে ইভিএম।এদিন অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা শিলিগুড়ি কর্পোরেশনের মেয়র অশোক ভট্টাচার্য,বিধায়ক তথা সিপিএম নেতা তন্ময় ভট্টাচার্য প্রমুখ।

FOLLOW US ON:
Rate This Article:
NO COMMENTS

LEAVE A COMMENT