CPIM এর ফেসবুক পেজ, রাতের ঘুম কাড়ল বিজেপির।

বিজেপির মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ত্রিপুরার CPIM এর ফেসবুক পেজ।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ গত কয়েক বছরের মধ্যেই, রাজনৈতিক লড়াইয়ের অন্যতম ক্ষেত্র হয়ে দাঁড়িয়েছে  সোশ্যাল মিডিয়া। পথ থেকে নেট, লড়াইয়ে পিছিয়ে নেই কেউ ই। সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহারে দেখা যায় রাজনৈতিক দল গুলকে বিপুল অর্থ ব্যয় বরাদ্দ করতে। আর এই সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যাবহার করাতে সব থেকে বেশি অর্থ বরাদ্দ করে এসেছে বিজেপি। এবার সেই সোশ্যাল মিডিয়ার লড়াইতে বিজেপিরই রাতের ঘুম কাড়ল CPIM এর ফেসবুক পেজ।

দীর্ঘ দিন ধরে ত্রিপুরার বিজেপির মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ত্রিপুরার CPIM এর ফেসবুক পেজ। যেকোনো রাজনৈতিক ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গেই ত্রিপুরার CPIM এর ফেসবুক পেজের পক্ষ থেকে সেই ঘটনা সরাসরি মানুষের কাছে পৌঁছে দিচ্ছেন CPIM এর ডিজিটাল সৈনিকরা। আর তাই নিয়েই যথেষ্ট চাপ বাড়ছে বিজেপির অন্দরে।

গত কাল এই নিয়ে সাংবাদিক দের সামনে মুখ খোলেন, বিজেপির প্রদেশ মুখপত্র নবেন্দু ভট্টাচার্য। তিনি সাংবাদিক দের জানান, "সিপিএম এর লোকেরা কিভাবে তৈরি থাকেন এই ঘটনা গুলোর লাইভ করার জন্য ! ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গেই দেখা যায় ত্রিপুরার CPIM এর ফেসবুক পেজ থেকে সেই ঘটনা দেখিয়ে দেওয়া হয়।" তবে এই ঘটনা প্রথম নয়, এর আগেও বিজেপি নেত্রী তথা লোকসভার সদস্য প্রতিমা ভৌমিক কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমকে জানান তার ভিডিও না তোলার জন্য, কারণ বলতে গিয়ে তিনি জানান তাদের ভিডিও এই সংবাদ মাধ্যম গুলোর মধ্যে দিয়ে CPIM এর ফেসবুক পেজে পৌঁছে যাচ্ছে। 

প্রসঙ্গত, কিছু দিন আগেই ত্রিপুরায় একটি রক্তদান শিবির কে কেন্দ্র করে CPI(M) এবং BJP সংঘাত লাগে। সেই রক্তদান শিবিরের সম্পূর্ণ লাইভ ত্রিপুরার CPIM এর ফেসবুক পেজে পোস্ট করা হয়। যার ফলে বিজেপি বামেদের বিরুদ্ধে আক্রমণের সাজানো অভিযোগ আনলেও তা কোন ভাবেই মান্যতা পায়নি।  

এই ঘটনার পর থেকেই, CPIM এর ফেসবুক পেজকে নিয়ে যথেষ্ট চাপ বাড়ছে বিজেপির অন্দরেই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ত্রিপুরার CPIM এর ফেসবুক পেজের সঙ্গে যুক্ত এক জন ডিজিটাল সৈনিক ১০দিক২৪ এ জানান "বিজেপির অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে, আমাদের কাছে অনেক ভিডিও বিজেপির সমর্থকরাই পাঠান। মুখ্য ধারার মিডিয়া অনেক খবর দেখান না, সেগুলো আমরা মানুষের কাছে ধারাবাহিক ভাবে তুলে ধরছি যার ফলে বিজেপি অস্বস্থিতে পড়ছে।"

প্রসঙ্গত, বিপুল অর্থ দিয়ে বিজেপির মত আইটি সেল না রেখে নিজেদের কর্মীদের শিখিয়ে পড়িয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ডিজিটাল সৈনিক তৈরির কাজকে রূপায়িত করছে বামেরা। যার ফলে অনেকটাই সমস্যায় পড়তে হচ্ছে বিজেপিকে। ত্রিপুরায় ক্ষমতায় আসার ক্ষেত্রে বিজেপিকে অনেক সাহায্য করেছে বিজেপির সোশ্যাল মিডিয়া প্রচার। সেখানে বিকল্প হিসেবে সমানে সমানে টেক্কা দিচ্ছে বামেরা। নেটের লড়াই এর সাথে সাথে রাজপথেই লড়াইতে কতটা দাগ কাটতে পারবে বামেরা, সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।