বিজেপির 'ভুল' শুধরে দিল দেশের শীর্ষ আদালত, জানালো রাজ্য ছাড়া করা হবে নাকাউকে।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ আসামের জাতীয় নাগরিক পঞ্জীর চূড়ান্ত খসড়াতে প্রকাশিত নামে ৪০ লক্ষ মানুষ বাদ পরেছে আর তাতেই ঘটেছে বিপত্তি। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে শুরু হয় আন্দোলন। বাদ যায়নি আমাদের বাংলা ও। কিন্তু এবার এই জট মেটাতে মুখ খুলতে হল, সুপ্রিম কোর্ট কেই।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এবং বিচারপতি আর এফ নরিম্যানের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, "আসামের নাগরিক তালিকা একটি খসড়া মাত্র। তাই এর ভিত্তিতে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া যাবে না। এ ব্যাপারে যে দাবিদাওয়া এবং আপত্তি-অসন্তোষ রয়েছে, তা মেটানো হবে স্বচ্ছ পদ্ধতিতে। সংশ্লিষ্ট দাবি ও পাল্টা দাবিগুলি কোন পদ্ধতিতে মেটানো হবে আগামী ১৬ আগস্টের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারকে তা শীর্ষ আদালতকে অবহিত করতে হবে। মানুষের মধ্যে যাতে কোনও বিভ্রান্তি তৈরি না হয়, সেজন্য আসামের খসড়া নাগরিক-পঞ্জি আগামী ৭ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হবে। যাদের নাম বাদ গেছে তারা তাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করানোর সুযোগ পাবেন। এর সময়সীমা হবে ৩০ আগস্ট থেকে ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে। যাদের আপত্তি, অসন্তোষ রয়েছে তারাও এই সময়ের মধ্যে লিখিতভাবে অভিযোগ জানাতে পারবেন।"

আর এতেই মিলেছে কিছুটা স্বস্তি। কারণ কিছু দিন আগেই, এনআরসি প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা বিজেপির হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেছিলেন, যাঁদের নাম তালিকায় থাকবে না, তাঁদের বের করে দেওয়া হবে। আর এই ভুল মন্তব্যের জন্যই আতঙ্কে ভুগছিলেন সাধারণ মানুষ। তবে দেশের শীর্ষ আদালতের এই নির্দেশিকার পর সাধারণ মানুষের কিছুটা স্বস্তি ফিরেপবে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

 

পড়ুনঃ "ভাঙ্গা বুকের পাঁজর দিয়ে নয়া বাংলা গড়েছে জ্যোতি বসুরা, এ-বাংলা ভাগ হতে দেবো না।" সুজন।