বাংলাদেশের রাস্তায় সাহসিকতার নিদর্শন। ধর্ষনের হাত থেকে বাঁচলেন তরুণী। ভিডিওসহ।

খবরটি ফেসবুক থেকে যেমন পাওয়া তেমন ই আপনাদের সামনে তুলে ধরছি। সম্পূর্ণ ঘটনাটি পোস্ট করেছেন  ফয়সাল মাহমুদ নীল  নামক এক যুবক, তার ভাষ্য টি আপনাদের সামনে তুলে ধরছি। 


"আজ অফিস থেকে ফেরার পথে মোহাম্মদপুর, কলেজ গেট সিগনালে ঠিক আমার সামনের গাড়িটাতে লক্ষ্য করে দেখি ভেতরে একটি ছেলে ও একটি মেয়ে ধস্তা-ধস্তি করছে এবং গাড়ির ড্রাইভার এর গাড়ি চালানোর ভঙ্গিমা দেখে মনে হচ্ছিলো যে সে গাড়িটা নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে | তবে দুর্ভাগ্য তাদের, রাস্তায় তীব্র জ্যাম থাকায় গাড়িটি বেশি দূর যেতে পারেনি | এমতাবস্তায় আমি আমার গাড়ি থেকে নেমে সামনে যেতে যেতে দেখি আরো কিছু লোক গাড়িটির দিকে লক্ষ্য করে এগুচ্ছে | তখনও ভাবতে পারিনি এতটা নিচ ও নিকৃষ্ট ঘটনার চাক্ষুষ প্রমান হতে যাচ্ছি |
 

আমি গাড়িটির কাচ্ছে যেতেই দেখি ছেলেটি মেয়েটিকে ধর্ষণ করচ্ছে | গাড়ির দরজা খুলে প্রথমে আমরা মেয়েটিকে বাইরে বের করে নিয়ে আসি পরে অপর পাশের দরজা খুলতেই দেখি অতিপরিচিত সেই ছেলেটি অর্থাৎ বড়লোক বাবার বখে যাওয়া নষ্ট সন্তান | ছেলেটিকে বাইরে বের করতে গিয়ে সহ্য করতে হয়েছে বাজে মদের গন্ধ | আর নিজেকে সামলাতে পারলাম না, অতঃপর বসিয়ে দিলাম ওই জানোয়ারের কানের নিচে আমার বাম হাতের পাঁচ আংগুলের চিহ্ন | এরপর ক্ষুব্ধ জনতা চিলের মতো করে আমার কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে তাদের বাকি দায়িত্ব পালন করলো |

পরে মেয়েটির কাছ থেকে জানতে পারলাম , ওই নর-পিচাশটা মেয়েটিকে রাস্তা থেকে জোর করে তুলে নিয়ে এসেছে |

- রাফি আহমেদ

বিঃদ্রঃ নিরাপত্তা এবং হয়রানির কথা মাথায় রেখে ভিডিও থেকে মেয়েটির ফুটেজ বাদ দেয়া হয়েছে।

ধর্ষিতার নয়, প্রকাশ হোক ধর্ষকের ছবি.."
 
 

ভিডিও টি দেখতে ক্লিক করুন নিচের Youtube এ