জেলে যেতে হতে পারে মুখ্যমন্ত্রী কে। আশঙ্কা প্রকাশ করে জানালেন মমতা।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ শিলিগুড়িতে এক হিন্দিভাষী পরিষদের সভায় উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখান থেকে চেনা সুরেই বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী। সরাসরি সন্ত্রাসের অভিযোগ তুললেন গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে।

এর আগে ইসলামপুর কান্ডে আরএসএসের যোগ আছে বলায় সঙ্ঘের তরফ থেকে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নামে মামলা করা হয়। কিন্তু তাতে যে কোনো প্রভাব পড়বেনা তা বোঝাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন আবার ওই একই অভিযোগ করে বলেন "বিজেপি সবসময় বহিরাগত দুষ্কৃতীদের দিয়ে রাজ্যে সন্ত্রাস সৃষ্টি করে।"



তিনি বললেন এখন কেউ বিজেপি বিরোধী কথা বললেই তার পিছনে সিবিআই বা ইডি কে লাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তবে এদিন মুখ্যমন্ত্রী তাঁর স্বভাবসিদ্ধ ঢঙেই জানালেন এসবে তিনি ভয় পাননা। বললেন "আমি বলি তোমরা যা খুশি কর। আমি জেলে যেতে প্রস্তুত। কিন্তু কথা বলা বন্ধ করব না।"

এদিন সরাসরি কাঠগড়ায় তুললেন বিজেপিশাষিত রাজ্যগুলিকেও। কদিন আগেই উত্তরপ্রদেশে এক অ্যাপেলের কর্তাকে পুলিশের পিটিয়ে মারার প্রসঙ্গ তুলে তিনি বললেন হিন্দিভাষীরা আদপে বাংলাতেই নিরাপদ। এখানে উত্তরপ্রদেশ বা রাজস্থানের মত কোনো এনকাউন্টার বা পিটিয়ে মারার ঘটনা ঘটেনা। কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগে তিনি জানান নোটবন্দি করে দেশের মানুষকে বিপাকে ফেলা ছাড়া এতদিন বিজেপি আর কিছুই করেনি।



তবে এদিনের সভা থেকে তিনি এটিও স্পষ্ট করেন যে তিনি এখানে ভোট চাইতে আসেননি। বিজেপি হিন্দি ও বাংলাভাষীদের মধ্যে যে বিভাজনের রাজনীতি করছে তিনি তার বিরোধী। হিন্দিভাষী বলেই যে সে বিজেপিকে ভোট দেবে তা ঠিক নয়। বরং যার যাকে ইচ্ছা সে তাকে ভোট দেবে। তবে সরাসরি ভোটের কথা না বলে বিজেপির নিন্দা ও ভোটভাগের কথা বলে যে তিনি যে প্রকারান্তরে তৃণমূলকেই ভোট দেবার কথা বললেন তা মোটামুটি পরিস্কার সবার কাছেই।