মাওবাদী দের বন্দুকের নলের সামনে বুক পেতে দেওয়া মার্শালের, পড়ার খরচ কাঁধেনিলো SFI।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ পশ্চিম মেদিনীপুরের শিওড়বনি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক জন শিক্ষক কে যখন মাওবাদীরা গুলি করে হত্যা করতে এসেছিল, তখন মাওবাদী দের AK47 এর সামনে বুক পেতে দিয়েছিল ক্লাস ৩ এর ছাত্র মার্শাল মুরমু। সেদিন মার্শাল দের কাছ থেকে তাদের প্রিয় শিক্ষক কে ছিনিয়ে নিয়ে যেতে পারেনি মাওবাদীরা। ওই স্কুলের শিক্ষক ছিলেন স্থানীয় সিপিএম নেতা উদয়ভানু লোহার। মার্শাল কে লক্ষ করে গুলি চললেও পাঁজরের পাশ ঘেঁষে বেরিয়ে গিয়েছিল গুলি।




বাম জামানায় যখন পশ্চিম মেদিনীপুর জঙ্গল মহল জুড়ে চলছে মাওবাদী রাজত্ব, যখন শালকু সরেনের মত একাধিক বাম কর্মী খুন হচ্ছে মাওবাদী দের হাতে সেই সময় ক্লাস ৩ এর ছাত্র মার্শালের বীরত্বে মন কেড়েছিল মানুষের। এর পর রাজ্যে এসেছে পরিবর্তন। দীর্ঘ বাম জামানার শেষে এসেছে তৃণমূলী শাসন।

এই মুহূর্তে সেদিনের ছোট মার্শাল, এখন উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্র। মার্শাল এখন গোয়ালতোড় হাইস্কুলে উচ্চ মাধ্যমিকের বৃত্তিমূলক শাখায় পড়ছেন। আর্থিক অবস্থা খারাপ থাকায় লেখা পড়ার খরচ জোগান দায় হয়ে পড়েছে। এবার সেই দায় নিজের কাঁধে তুলে নিলো, ভারতের ছাত্র ফেডারেশন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটি। আজ ভারতের ছাত্র ফেডারেশন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির পক্ষ থেকে একটি প্রেস বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, মার্শালের পড়াশুনার সকল দায়িত্ব এবার থেকে SFI নিজের কাঁধে তুলে নিচ্ছে। স্বাভাবিক ভাবে এই ঘটনা বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থার দিকে আঙ্গুল তুলে দিল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।