Homeরাজ্যপ্রধানমন্ত্রী হবার স্বপ্ন পূরণ হল না। বামেদের পর তৃণমূলের ব্রিগেডে প্রত্যাখান কংগ্রেসের।

প্রধানমন্ত্রী হবার স্বপ্ন পূরণ হল না। বামেদের পর তৃণমূলের ব্রিগেডে প্রত্যাখান কংগ্রেসের।

১০দিক২৪ ব্যুরোঃ ২১শে জুলাই বিজেপির বিরুদ্ধে লড়ার জন্য যে ফেডারেল ফ্রন্টের ডাক দিয়েছিলেন তৃণমূল সুপ্রীমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তা কার্যত ব্যর্থতায় পর্যবসিত হতে চলেছে। তিনি বলেছিলেন ১৯শে জানুয়ারী তৃণমূলের ব্রিগেড থেকেই সূচনা হবে এক ফেডারেল ফারন্টের। সেইমতো দেশের সমস্ত বিজেপি বিরোধী দলগুলির সামনে আমন্ত্রণও রাখা হয় সমাবেশে উপস্থিত হবার। কিন্তু কংগ্রেস সহ সিপিআইএম, সিপিআই সহ দলগুলি এদিন সাফ জানালেন বিজেপি বিরোধী লড়াই এ তারা আছেন। কিন্তু মমতার হাত তারা ধরবেন না। বা উপস্থিত থাকবেননা ১৯শে জানুয়ারির ব্রিগেড সমাবেশেও।

রাজ্য কংগ্রেসের তরফ থেকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র জানিয়েছেন রাহুল গান্ধীর নির্দেশ অনুসারে মমতার ফেডারেল ফ্রন্টে যোগ দেবেনা কংগ্রেস এবং ব্রিগেড সমাবেশেও রাজ্য কংগ্রেসের তরফ থেকে পাঠানো হবেনা কোনো প্রতিনিধিকেও।




এছাড়াও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কথা বলেছিলেন তেলেগু দেশম নেতা চন্দ্রবাবু নাইডু, টিআরএস নেতা চন্দ্রশেখর রাও, কাশ্মীরের ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রবীণ নেতা ফারুক আবদুল্লাহ, বিএসপি নেত্রী মায়াবতী, এসপি নেতা অখিলেশ যাদবসহ বহু নেতার সঙ্গে। সেখানেও খুব একটা আশার আলো দেখতে পাননি তিনি। ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ফারুক আবদুল্লাহ স্পষ্টই জানিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেস ব্যতীত বিজেপি বিরোধী কোনো জোটকেই তারা প্রাধান্য দেবেননা। কারণ বিজেপি ব্যতীত দেশের প্রধাণ শক্তি কংগ্রেসই। তাই সেদিক থেকেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাহায্য পাবার কোনো আশা নেই।

এদিকে রাজ্য সিপিআইএম দ্বর্থহীন ভাষায় জানিয়েছেন মোদী ও মমতা একই পথের পথিক। তাই মোদী বিরোধী লড়াইএ মমতার হাত ধরার কোনো অর্থই হয়না। সিপিআইএমের রাজ্যসম্পাদক সুর্যকান্ত মিশ্র মেদিনীপুরের দলীয় সভা থেকে বলেন “মমতা ভারতের হিন্দুত্ববাদী সংগঠন আরএসএস বা রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের দালাল। আমরা মমতার প্রস্তাবিত ফেডারেল ফ্রন্টে যোগ দেবো না। এমনকি ১৯ জানুয়ারির কলকাতার ব্রিগেড মহাসমাবেশেও উপস্থিত থাকার প্রশ্নও ওঠেনা।
মমতা বিজেপি-আরএসএস’-এর দালাল বা এজেন্ট হিসেবে কাজ করছে। বিরোধী ঐক্য ভাঙতে চাইছে মমতা। তাই তার সঙ্গে ঐক্য নয়।”




ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিআই) কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এস সুধাকর রেড্ডিও জানালেন তারাও যোগ দিচ্ছেননা ফেডারেল ফ্রন্টে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের হাতে বহু সিপিআই কর্মীকে মার খেতে হয়েছে। হয়েছে মিথ্যা পুলিশী মামলাও। এসবের মূলে যার দল তার হাত করার কোনো সম্ভাবনাই থাকেনা। সব মিলিয়ে বেশ প্রশ্নের মুখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের ফেডারেল ফ্রন্ট।




FOLLOW US ON:
Rate This Article:
NO COMMENTS

Sorry, the comment form is closed at this time.