বর্ষাকালের উপযোগী চুলের যত্ন।

বিনোদন রূপচর্চা

১০দিক২৪ঃ দেখতে দেখতে এসে গেল বর্ষাকাল। এই সময়টা যতই কাদা প্যাচপ্যাচে বলে বিরক্তি প্রকাশ করি না কেন, মনে মনে বৃষ্টিকে একটু ভালো আমরা বাঙালী মাত্রই বাসি। বৃষ্টিতে ভিজতেও ছোটো থেকে বড় সকলের বেশ ভালো লাগে। কিন্তু এই বৃষ্টিতে ভেজার ফলে বেশ ক্ষতি হয় চুলের। তাই আজ আমরা এমন কয়েকটি টিপস নিয়ে এসেছি যা হবে বর্ষাকালে আপনার চুলের হেলদি থাকার হেল্পিং হ্যান্ড। চটপট পড়ে করে ফেলুন চুল সংক্রান্ত সব সমস্যার সমাধান।

১. বৃষ্টি হলেও দৈনন্দিন কাজে বাইরে বেরোতেই হয়। কর্মরতা মহিলাদের ও কাজ কামাই করা তো সম্ভব না। এইসবের জন্য কমবেশী হঠাৎ বৃষ্টিতে ভিজতে হয়েই। কিন্তু বৃষ্টির জলে অনেক রকম দূষণ থাকার কারণে চুল চিটচিটে হয়ে পড়ে। তাই বৃষ্টিতে চুল ভিজে গেলে অবশ্যই চুল ভালো করে ধুয়ে নিন। এবং ছাতা বা রেনকোট রাখুন। বারবার ভিজলে চুলের ক্ষতি হতে পারে।

২. বর্ষাকালে অন্যান্য সময়ের থেকে বেশী হেয়ারফল হয়। স্ক্যাল্প অতিরিক্ত তৈলাক্ত হবার কারণে চুলের গোড়া দুর্বল হয়ে এরকম হয়ে থাকে। তাই এইসময় কখনো ভিজে চুল আঁচড়াবেন না। এতে চুল ছিঁড়ে যায়। চুল শুকোলে মোটা দাঁড়ার চিরুনি দিয়ে ভালো করে চুল আঁচড়ে নিন।

৩. এইসময় চুল খুব তাড়াতাড়ি আঠালো হয়ে যায়। তাই চেষ্টা করুন সপ্তাহে ৪-৫দিন মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুতে। খুব বেশী কেমিক্যাল যুক্ত শ্যাম্পু বা কন্ডিশনার এইসময় ব্যবহার না করাই ভালো।
মেথি সারারাত জলে ভিজিয়ে পরের দিন ছেঁকে জলটা দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে নিন। দেখবেন চুল ঝরঝরে হবে।

৪. বর্ষাকালে চুল এমনিতেই বেশ ভঙ্গুর থাকে। তাই বেশী পরীক্ষা নিরীক্ষা না করাই ভালো। ব্লো ড্রাই বা কালার করার মতো জিনিস এড়িয়ে যাওয়া টাই উচিত হবে। চেষ্টা করবেন প্রাকৃতিক ভাবে চুল শুকোতে।

৫ . কার্লিং বা স্ট্রেটনিং করাবেন না। এগুলোয় এমনিতেই চুলের বেশ ক্ষতি হয়। বর্ষাকালে আরও বেশী হবে।
এছাড়া নিয়মিত পরিমাণে জল খাবেন। সবুজ শাকসব্জি বা স্যালাড খাবেন। তৈলাক্ত খাবারের থেকে সাবধানতা অবলম্বন করাটাই উচিত হবে আপনার।